kalerkantho


ভাঙ্গায় গৃহবধূর মৃত্যু

আদালতের নির্দেশে কবর থেকে তোলা হলো সুমির লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আদালতের নির্দেশে ফের ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুরের ভাঙ্গার উচাবাড়ী গ্রামের কবর থেকে গৃহবধূ আইরিন নাহার সুমির লাশ তোলা হয়েছে। গতকাল রবিবার লাশটি তোলার পর ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আসাদুজ্জামান, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ভাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সৌমেন মৈত্র ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ রশিদের উপস্থিতিতে সুমির লাশ কবর থেকে তোলা হয়।

এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান জানান, মামলার বাদী সুমির বাবা মো. গোলজার হোসেনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত সুমির লাশের পুনঃ ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেন। তিনি আরো জানান, লাশ তুলে ফের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে সুমি হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। গতকাল সকালে তারা উচাবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে তারা এই বিক্ষোভ করে।

২২ ফেব্রুয়ারি বিকেলে শ্বশুরবাড়ির উঠান থেকে সুমির লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁর শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ছিল। ঘটনার পর থেকে সুমির শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক। সুমির পরিবারের অভিযোগ, একাধিকবার যৌতুকের টাকা দেওয়া হলেও আবারও একই দাবি করেন সুমির স্বামী মাহাবুব শেখ।

ওই টাকা না পেয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন সুমিকে পরিকল্পিতভাবে শ্বাসরোধে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করে।

এ ঘটনায় সুমির বাবা বাদী হয়ে ভাঙ্গা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি হত্যা মামলা করেন। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে অসন্তুষ্ট হয়ে তিনি (বাদী) ফরিদপুরের দুই নম্বর আমলি আদালতে পুনঃ ময়নাতদন্তের আবেদন জানান।

 


মন্তব্য