kalerkantho


ভাগ্নের হাতে নৌকার বৈঠা, ধানে মগ্ন মামা

নোয়ারাই

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভাগ্নের হাতে নৌকার বৈঠা, ধানে মগ্ন মামা

মামা জোয়াদ আলী তালুকদার। নির্বাচন করছেন বিএনপির মনোনয়নে। ধানের শীষ তাঁর নির্বাচনী প্রতীক। তাঁরই আপন ভাগ্নে আফজাল আবেদীন আবুল। তিনিও  চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন। প্রতীক নৌকা। প্রতিদ্বন্দ্বী আর কেউ নন, তাঁরই মামা জোয়াদ আলী তালুকদার। প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের ব্যানারে একই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে তাঁরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নে ৩১ মার্চ অনুষ্ঠেয় নির্বাচনী মাঠে এমন দৃশ্য সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক কৌতূহলের জন্ম দিয়েছে। ভোটারদের মন জয় করতে একে অন্যের বিরুদ্ধে ধুমছে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এলাকাবাসী জানান, নির্বাচনী মাঠে মামা জোয়াদ আলী বিএনপির একক প্রার্থী হলেও বিপাকে রয়েছেন ভাগ্নে আবুল। কারণ আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী দেওয়ান আবদুল খালিক পীর রাজা বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। তাঁর পক্ষে রয়েছে আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী একটি অংশ। তাঁরা ওপরে আবুলের সমর্থক হলেও ভেতরে ভেতরে বিদ্রোহী প্রার্থী রাজার ভোট করছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। এ কারণে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে ব্যাপক ঘাম ঝরাতে হচ্ছে। অন্যদিকে বেশ ফুরফুরেই রয়েছেন মামা বিএনপির প্রার্থী জোয়াদ আলী তালুকদার। বিএনপি থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকায় দলের সব ভোট তাঁর পক্ষেই যাবে বলে ধারণা করছেন সাধারণ ভোটাররা।

জানা গেছে, ভোটের মাঠে জনপ্রিয় ও গত ৫ বছরে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের কারণে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দেয় বর্তমান চেয়ারম্যান আফজাল আবেদীন আবুলকে। বিএনপি মনোনয়ন দেয় উপজেলা বিএনপির সদস্য জোয়াদ আলী তালুকদারকে। জাতীয় পার্টির টিকিটে নির্বাচন করছেন শামীম আহসান। এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন ছালিক মিয়া তালুকদার। প্রার্থী চারজন হলেও শেষ পর্যন্ত লড়াইটা মামা-ভাগ্নের মধ্যেই হবে বলে ভোটারদের ধারণা।

এদিকে মামা-ভাগ্নের পাল্টাপাল্টি আলোচনা-সমালোচনার কারণে ওই ইউনিয়নের ১০টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৯টি ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন।

এ ব্যাপারে বিএনপি প্রার্থী জোয়াদ আলী তালুকদার বলেন, ‘ক্ষমতাসীন দলের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা আমাদের কর্মী-সমর্থকদের বাধা দিচ্ছে। তার পরও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হব। সব আত্মীয়স্বজনসহ সাধারণ ভোটাররা আমাকেই ভোট দিবেন। ’

ভাগ্নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আফজাল আবেদীন আবুল বলেন, ‘বিএনপির প্রার্থী সম্পর্কে আমার আপন মামা হলেও আমরা দুজনই ভিন্ন আদর্শের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। আমি আমার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ায় আমার আত্মীয়স্বজনরা খুশি। আত্মীয়স্বজনদের ভোটসহ দলের সব পর্যায়ের ভোট আমার বাক্সেই পড়বে। ’ তাঁর কর্মীরা সুষ্ঠুভাবেই নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন বলেও দাবি করেন তিনি।


মন্তব্য