kalerkantho


কলারোয়া সীমান্তে তরুণীর লাশ

তিন স্থানে আরো তিন লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্ত থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক তরুণীর ও দিনাজপুরের হিলির দক্ষিণ বাসুদেবপুর সীমান্ত এলাকা থেকে এক বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া আরো দুই স্থানে দুজনকে খুন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

সাতক্ষীরা : কলারোয়া সীমান্তের চারাবাড়ী গ্রামের একটি ধানক্ষেত থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক তরুণীর (২৭) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ভোরে সীমান্তের মেইন পিলার ১৩ থেকে ১০০ গজ দূরে নো ম্যান্স ল্যান্ড এরিয়ায় লাশটি উদ্ধার করা হয়।

তলুইগাছা বিওপির (বর্ডার অপারেশন পোস্ট) কমান্ডার সুবেদার কবির হোসেন জানান, শাড়ি ও কালো রঙের বোরকা পরা ওই নারীর লাশ দেখে খবর দেয় স্থানীয় কৃষকরা। পরে বিজিবি পুলিশকে জানালে তারা লাশটি উদ্ধার করে। তিনি আরো জানান, সীমান্তের দুই প্রান্তে বাংলাদেশ ও ভারতীয় এলাকায় কোনো ধরনের গুলির ঘটনা ঘটেনি।

কলারোয়া থানার ওসি শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম জানান, লাশের গলা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

দিনাজপুর : হাকিমপুর উপজেলার হিলির দক্ষিণ বাসুদেবপুর সীমান্ত এলাকা থেকে শুক্রবার সকালে অজ্ঞাতপরিচয় এক বৃদ্ধের (৬৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। হাকিমপুর থানার পরিদর্শক মোকলেছুর রহমান জানান, দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজের মর্গে লাশের ময়নাতদন্ত শেষ হয়েছে।

পিরোজপুর : পিরোজপুর সদরের কদমতলা গ্রামে শুক্রবার পারিবারিক বিরোধের জেরে শাহজাহান শেখ (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে হত্যার পর লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

তিনি ওই উপজেলার তেজদাসকাঠি গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।

শাহজাহানের ভাই আব্দুস সোবাহান জানান, শাহজাহানের সঙ্গে তাঁর স্ত্রী মাকসুদার প্রায় দুই বছর ধরে বিরোধ চলছিল। গত মঙ্গলবার মাকসুদা স্বামীকে খবর দিয়ে তাঁর বাবার বাড়িতে নিয়ে যান। শুক্রবার সকালে শ্বশুরবাড়ির ঘরের সামনে একটি আমগাছের সঙ্গে শাহজাহানের ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়। তাঁর ভাইকে হত্যার পর গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন সোবহান।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : কসবায় ইনতু মিয়া (৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে খুন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জাকির হোসেন নামের এক রিকশাচালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত ময়মনসিংহের গৌরিপুরের সরিষাহাটি গ্রামের বাসিন্দা। হত্যার ঘটনায় ইনতু মিয়ার ছেলে বোরহান উদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় তিন-চারজনকে আসামি করে কসবা থানায় একটি মামলা করেছেন।


মন্তব্য