kalerkantho


সাইফুর’সের বিজ্ঞাপনে শিক্ষামন্ত্রীর আপত্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সাইফুর’স কোচিং সেন্টারের দেওয়া বিজ্ঞাপনের ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মন্ত্রী। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা উপলক্ষে আয়োজিত জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। পরীক্ষা আগামী ৩ এপ্রিল শুরু হবে।

সাইফুর’সের ব্যাপারে মন্ত্রী বলেন, ‘তারা একটি বিজ্ঞাপন দিয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ভালো ইংরেজি না জানলে ভালো লেখাপড়া হবে না। এমনকি ভালো হ্যাকারও হওয়া যাবে না। এ রকম বিজ্ঞাপন দিয়ে তারা ভালো চোর বানাতে চাইছে। তাদের বিরুদ্ধে যদি আমরা সোচ্চার না হই, তাহলে আমরা কী করে সমাজে থাকব?’

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘হ্যাকার হওয়ার জন্যও তার (সাইফুর’স) কাছে গিয়ে পড়তে হবে! বিজ্ঞাপন দিচ্ছে, এটা অবশ্যই বেআইনি। তারা এ ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে পারে না। আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব। ’

কোচিং সেন্টারগুলোর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘এরা এই রকম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে, এদের ব্যাপারে আমরা আর সহনশীল হতে পারি না। তারা আমাদের ছেলেমেয়েদের প্রলোভন দেখাচ্ছে, ভালো ইংরেজি শিখলে ভালো চোর হতে পারবা, ভালো করে হ্যাকিং করতে পারবা। ’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ছেলেমেয়েদের প্রযুক্তি শেখাচ্ছি। তবে যদি তাদের ভালো মানুষ না করতে পারি, তবে এ শিক্ষা খারাপ হতে পারে। প্রযুক্তি ভালো মানুষের হাতে পড়লে জনগণের কল্যাণ হবে, খারাপ মানুষের হাতে পড়লে ক্ষতি হবে। ’

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞাপন দেয় সাইফুর’স। তাতে বলা হয়, ‘ইংলিশ-এর ভুলে বাংলাদেশ ব্যাংকের ১৬০ কোটি টাকা হ্যাকারদের হাতছাড়া!’ 

সাইফুর’সের বক্তব্য : তবে ওই বিজ্ঞাপন সম্পর্কে সাইফুর’স কোচিং সেন্টারের মহাব্যবস্থাপক আশরাফ উদ্দিন জুয়েল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা মূলত ইংরেজি শেখার গুরুত্বকে বোঝাতে এই বিজ্ঞাপন দিয়েছিলাম। আমাদের অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল না। আমরা বোঝাতে চেয়েছি ইংরেজি চর্চাটা যদি বেশি হয় তাহলে সরকারের ভিশন ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের পথ আরো সুগম হবে। ’ তিনি আরো বলেন, ‘এর পরও যদি এই বিজ্ঞাপন নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি হয় বা কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহলে আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। ’


মন্তব্য