kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


সহিংসতায় নিহত ১, আহত ৮৪

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সহিংসতায় নিহত ১, আহত ৮৪

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচারের সময় গতকাল রবিবার রাতেই শেষ হয়েছে। এর আগের দিন শনিবার রাতে প্রচার চালানোর সময় পাবনায় আওয়ামী লীগ ও এর ‘বিদ্রোহী’ দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষের সময় গুলিতে নিহত হয়েছেন একজন। গতকাল ভোলার একটি ইউনিয়নে এক সদস্য প্রার্থীর হাতের কবজি কেটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এই দুই জেলাসহ মাদারীপুর, শেরপুর, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি ও কুমিল্লায় নির্বাচনী সহিংসতায় আহত হয়েছে আরো অন্তত ৮৪ জন।

আগামীকাল মঙ্গলবার ইউনিয়ন পরিষদের প্রথম ধাপের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গতকাল পর্যন্ত সহিংসতায় নিহত হয়েছে মোট ৯ জন। এর মধ্যে পাঁচজনই নিহত হয়েছে বরিশাল বিভাগে। একজন করে মারা গেছে যশোর, বগুড়া, কিশোরগঞ্জ ও পাবনায়।

আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

পাবনায় গুলিতে একজন নিহত : বেড়া উপজেলার প্রত্যন্ত চরাঞ্চল ঢালারচরে আওয়ামী লীগদলীয় প্রার্থী ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় গুলিতে নিহত হয়েছেন গহের মণ্ডল (৩০) নামের একজন। আহত হয়েছে সাতজন। শনিবার রাতে ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কোরবান আলী সরদারের সমর্থকরা মিরপুর গ্রামে প্রচার চালাতে গেলে একই দলের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী নাসির উদ্দিন ব্যাপারীর সমর্থকরা বাধা দেয়। এর জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় গুলিতে নিহত হন গহের। তিনি নাসির উদ্দিনের সমর্থক এবং খয়েরবাগান গ্রামের পাশান মণ্ডলের ছেলে।

আমিনপুর থানার ওসি তাজুল হুদা কালের কণ্ঠকে জানান, ঢালারচরটির একদিকে মানিকগঞ্জ জেলা, অন্যদিকে রাজবাড়ী জেলা। তিন জেলার সীমানার মধ্যে অবস্থিত হওয়ায় দুর্গম এই চরাঞ্চলে সব সময় পুলিশের সতর্ক দৃষ্টি থাকে। এর মধ্যেও শনিবার রাতে সংঘর্ষ এবং একজন নিহত হওয়ার পর থেকে সেখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তত্পরতা আরো বাড়ানো হয়েছে। থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে গতকাল বিকেল পর্যন্ত এ ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি বলেও ওসি জানান।

ভোলায় সদস্য প্রার্থীর হাতের কবজি কেটে নিল দুর্বৃত্তরা : গতকাল সকালে লালমোহন উপজেলার ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদপ্রার্থী জাকির হোসেন ভূঁইয়া চর মোল্লাজি গ্রামে নির্বাচনী প্রচারে গেলে আক্রান্ত হন। দুর্বৃত্তরা তাঁর বাঁ হাতের কবজি কেটে বিচ্ছিন্ন করে পাশের খালে ফেলে দেয়। হামলায় আহত হয়েছে আরো একজন। প্রতিপক্ষ সদস্য প্রার্থী গিয়াস ভূঁইয়ার কর্মী রিয়াজ ও তাঁর দলবল জাকির হোসেনের ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ রয়েছে। জাকিরকে প্রথমে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে পরে দুপুরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। এ ঘটনার জের ধরে গিয়াস ভূঁইয়ার ভগ্নিপতি মফিজুল ইসলামের বসতঘরে আগুন ধরিয়ে দেয় জাকিরের কর্মী-সমর্থকরা। লালমোহন থানার ওসি আখতারুজ্জামান বলেন, ‘কোন পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’ এ ছাড়া শনিবার রাতে ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নে দুই সদস্য প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে তাদের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে বলে দুই পক্ষ দাবি করেছে। ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউনুছ ফরাজীর পুকুরপার এলাকায় এই সংঘর্ষ হয়। এ ছাড়া বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের কুঞ্জেরহাট ও কাজীরহাট এলাকায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আমিন নীরব হাওলাদারের দুটি নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা ও ভাঙচুর হয়েছে। আওয়ামী লীগদলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুর রব কাজীর কর্মী-সমর্থকরা এ হামলা করেছে বলে নীরব হাওলাদার অভিযোগ করেন।

ঝালকাঠিতে বোমায় যুবক আহত : সদর উপজেলার কীর্ত্তিপাশা ইউনিয়নের রুনসী গ্রামে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রার্থী আলো বেগমের ঘরে হাত বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে। এতে তাঁর জামাতা চিহ্নিত সন্ত্রাসী রানা ওরফে জগৎ রানার শরীরের একাংশ ঝলসে গেছে। গতকাল বিকেলে এই ঘটনা ঘটে। বোমা তৈরির সময় বিস্ফোরণ হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রানাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঝালকাঠি থানার ওসি মাহে আলম বলেন, পুলিশ তদন্ত করছে। প্রকৃত ঘটনা জেনেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ছাড়া কীর্ত্তিপাশা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুস শুক্কুর মোল্লা ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার আব্দুর রহিমের সমর্থদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। নলছিটির ভৈরবপাশা ইউনিয়নের ভৈরবপাশা বাজারে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নাসির উদ্দিন হাওলাদারের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয় পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রাজাপুরের শুক্তাগড় ইউনিয়নে একই দলের প্রার্থী মুজিবুল হক মৃধার নির্বাচনী কার্যালয়ে আগুন দেওয়া হয়েছে। মঠবাড়ি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোস্তফা কামাল সিকদারের নির্বাচনী প্রচারের একটি মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়া হয়েছে।

মাদারীপুর : মাদারীপুরের সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শনিবার রাতে ছয়না গ্রামে আওয়ামী লীগ মনোনীত ও দলের ‘বিদ্রোহী’ দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে দুই নারীসহ আহত হয়েছেন প্রায় ১০ জন।   স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী খলিলুর রহমান দর্জির সমর্থকরা ছয়না বাজারে সভা করার সময় হঠাৎ করেই আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বাবুল আক্তারের লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটির জের ধরে এই সংঘর্ষ হয়। এ সময় কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করা হয়।

শেরপুর : নালিতাবাড়ী উপজেলার রামচন্দ্রকুড়া-মণ্ডলিয়াপাড়া ইউনিয়নের বেলতৈল বাজার এবং কালাকুমা এলাকায় শনিবার রাতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আমান উল্লাহ বাদশার সমর্থকদের পৃথক হামলায় এক মুক্তিযোদ্ধাসহ ৫ জন আহত হয়েছে। তারা সবাই দলটির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী খোরশেদ আলম খোকার সমর্থক।

পটুয়াখালী : বাউফল উপজেলার নওমালা ইউনিয়নের ভাঙ্গাব্রিজ এলাকায় গতকাল আওয়ামী লীগ ও ওই দলের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এর জের ধরে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী শাহাজাদা হাওলাদারের সমর্থকরা আওয়ামী লীগ মনোনীত কামাল বিশ্বাসের সমর্থক আজিজ চৌকিদার বাড়ির ছয়টি এবং সুলতান মৃধা বাড়ির চারটি বসতঘরে ভাঙচুর চালায়। এ সময় প্রায় ২০ জন আহত হয়েছে।

মুরাদনগর (কুমিল্লা) : দেবীদ্বার উপজেলার সুবিল ইউনিয়নের আবদুল্লাহপুর গ্রামে শনিবার রাতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী এম এ রশিদের নির্বাচনী কার্যালয়ে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এর প্রতিবাদে নৌকার কর্মী-সমর্থকরা ঘটনাস্থল থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে দেবীদ্বার থানা ঘেরাও করে এবং কুমিল্লা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রায় আধা ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে।


মন্তব্য