kalerkantho

রবিবার। ২২ জানুয়ারি ২০১৭ । ৯ মাঘ ১৪২৩। ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ভোট উৎসব

শেষ বিকেলে সহিংসতা

তোফায়েল আহমদ, কক্সবাজার   

২১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



শেষ বিকেলে সহিংসতা

কক্সবাজারের মহেশখালীর পুটিবিলা মাদ্রাসা কেন্দ্র

কক্সবাজারের মহেশখালী পৌরসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণের শেষ দিকে এসে চারটি কেন্দ্রে গোলযোগ, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ ঘটেছে। পৌরসভার ঘোনারপাড়া ফোরকানিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী মকসুদ মিয়া ও একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থী সরওয়ার আজমের সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ঘটে।

বিদ্রোহী প্রার্থী সরওয়ার আজম অভিযোগ করেন, ওই কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মকসুদ মিয়ার এজেন্টরা জোরপূর্বক নৌকা প্রতীকে সিল মারছিল। এ নিয়ে সংঘর্ষ হয়। পুলিশ সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে অন্তত ১৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এই সংঘর্ষে সাতজন গুলিবিদ্ধসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন।

গুলিবিদ্ধরা হলেন রাসেল (২০), আবদুল গফুর (৩৫), নুর হোসেন (৪০), নেছার (১৮), মাহমুদুল করিম (২২), আবু ছিদ্দিক (৩৫) ও নুরুল কবির (৪২)। তাঁরা সবাই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থক বলে তিনি দাবি করেন। গুলিবিদ্ধদের প্রথমে মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঘোনারপাড়া কেন্দ্র ছাড়াও মহেশখালী পৌরসভার ভূমি অফিস কেন্দ্রে বার্মিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সিকদার পাড়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ঘটে। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সরওয়ার আজম দাবি করেন, ‘বিকেল ৩টা পর্যন্ত পৌরসভার ৯টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু পরে কয়েকটি কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের এজেন্টরা আমার এজেন্টদের বের করে দেয়। প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের যোগসাজশে তারা চারটি কেন্দ্রে কয়েক শ ব্যালট পেপারে সিল মারে। ’ গতকাল মহেশখালী পৌরসভার নির্বাচন কেন্দ্রগুলো বিকেল ৩টা পর্যন্ত সরেজমিনে পরিদর্শনকালে একদম শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি দেখা গেছে। তবে বিকেল ৩টার পরই একটি কেন্দ্রে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এ বিষয়ে নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘দিনের শেষ ভাগে এসে একটি কেন্দ্রের দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা পুরো দিনের স্বচ্ছ নির্বাচনকে ক্ষত করে দিয়েছে। ঘটনার পর পরই পর্যাপ্তসংখ্যক পুলিশ ও র‌্যাব মোতায়েন করা হয়েছে। ’

উল্লেখ্য, মহেশখালী পৌরসভার ৯টি ভোটকেন্দ্রে ভোটারের সংখ্যা ১৭ হাজার ৯৬০। এর মধ্যে পুরুষ ৯৪১৭ ও নারী ৮৫৪৩ জন।


মন্তব্য