kalerkantho


শিশু, তরুণী ও গৃহবধূর লাশ

ঝিনাইদহ, হবিগঞ্জ ও আঞ্চলিক প্রতিনিধি (গাজীপুর)   

২০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



শৈলকুপার ছোট মৌকুড়ি গ্রাম থেকে শনিবার সকালে শারমিন খাতুন (২৫) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

হত্যার পর লাশ ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন গৃহবধূর ভাই।

এ বিষয়ে শৈলকুপা থানার উপপরিদর্শক গোকুল চন্দ্র অধিকারী জানান, ছয় বছর আগে উপজেলার চর মৌকুড়ি গ্রামের আনছার শেখের মেয়ে শারমিনের সঙ্গে ছোট মৌকুড়ি গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে উজ্জ্বল বিশ্বাসের বিয়ে হয়। তাঁদের দুটি সন্তান আছে। বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। শনিবার সকালে ঘরের আড়ার সঙ্গে শারমিনের লাশ ঝুলতে দেখে প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দেয়। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। ঘটনার পর থেকেই শারমিনের শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে।

অন্যদিকে গাজীপুরের শ্রীপুরে খাল থেকে হাত-পা বাঁধা এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে পৌর শহরের কেওয়া দক্ষিণখণ্ড এলাকার গড়গড়িয়া খাল থেকে অজ্ঞাতপরিচয় ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানায়, লাশের শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে। হাত-পা বেঁধে ধর্ষণের পর তাঁকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে নবীগঞ্জের পল্লীতে নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর একটি ডোবা থেকে জিসান আহমেদ নামে ছয় বছর বয়সী এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের বনকাদিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জিসান ওই গ্রামের মৃত আনহার মিয়ার ছেলে। ডোবার পানিতে পড়ে নাকি অন্য কোনোভাবে তার মৃত্যু হয়েছে, তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারছে না।


মন্তব্য