kalerkantho


হাসপাতালে গিয়ে দুজনকে কোপ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

২০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে হামলায় আহত দুজনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। এ অবস্থায় হাসপাতালে ঢুকে আবারও ওই দুজনকে কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসীরা দ্রুত পালিয়ে যায়। জরুরি বিভাগের লোকজন জানায়, তারা কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘটনা ঘটিয়ে দুর্বৃত্তরা চলে যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দামুড়হুদা উপজেলার কলাবাড়ি গ্রামের নবীছদ্দিনের সঙ্গে চাচাতো ভাই ইয়াসিন ও ঈমান আলীর জমি নিয়ে বিরোধ দীর্ঘদিনের। গতকাল শনিবার দুপুরে দুই পক্ষে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে ইয়াসিন ও ঈমান আলীর লোকজনের হামলায় নবীছদ্দীন ও তাঁর জামাতা মুকুল হোসেন গুরুতর জখম হন। দ্রুত তাদের চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মাসুদ হোসেন নামের এক যুবকের নেতৃত্বে তিন-চারজন এসে হাসপাতালে ঢুকে নবীছদ্দিনকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. সউদ কবির জন জানান, শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা চলাকালে তিন-চার যুবক এসে আবারও নবীছদ্দিনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মাসুদ রানা বলেন, জরুরি বিভাগ ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকে। অথচ এখানকার নিরাপত্তার কোনো ব্যবস্থা করা যায়নি। হাসপাতালের নৈশপ্রহরীর পদটিও শূন্য। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও কাজ হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ততক্ষণে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। যেহেতু মূল মারামারিটা দামুড়হুদা থানা এলাকায় হয়েছে, তাই মামলাটা সেই থানায় করাই যুক্তিযুক্ত হবে।


মন্তব্য