kalerkantho


পুলিশ খুঁজে পাচ্ছে না আসামি মিছিলে

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

২০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পুলিশ খুঁজে পাচ্ছে না আসামি মিছিলে

আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোখলেছুর রহমানের (সাদা পাঞ্জাবি পরা) পেছনে আসামি জুয়েল লস্কর ওরফে মলম জুয়েল (নীল শার্ট পরা ও পকেটে কলম নেওয়া)। ছবিটি শুক্রবার বিকেলে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর সদর উপজেলার দাইসার গ্রাম থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় সাংবাদিকদের ওপর হামলা মামলার আসামিদের খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ। অথচ এক আসামিকে গত শুক্রবার ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর মিছিলে দেখা গেছে।

আসামিকে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন সদর ইউপির আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোখলেছুর রহমান। কয়েক দিন ধরে এ ধরনের প্রচারণার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে বইছে সমালোচনার ঝড়।

এ বিষয়ে মোখলেছুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘কী আর করব? এখন তো আর তাদের (হামলাকারীদের) দূরে ঠেলে দিতে পারছি না। ’

অন্যদিকে এজাহারভুক্ত আসামিদের হাতের কাছে পেয়েও গ্রেপ্তার না করার কারণে পুলিশের বিরুদ্ধে উঠেছে নানা প্রশ্ন। সাংবাদিকদের ওপর হামলার সময় ক্যামেরা ও ব্যাগ ছিনতাই হলেও পুলিশ এখনো খোয়া যাওয়া কোনো মালামাল উদ্ধার করতে পারেনি। শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাহিদুর রহমান বলেন, ‘আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ’

উল্লেখ্য, গত ৫ মার্চ বিকেলে ৫০-৬০ জন সন্ত্রাসী শ্রীনগর সদর ইউপির স্বতন্ত্র প্রার্থী তাজুল ইসলামের বাড়িতে হামলা চালায়। উপজেলার আরধীপাড়ার সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত জুয়েল লস্কর ওরফে মলম জুয়েল ও দেউলভোগ এলাকার পারভেজের ছেলে প্রিন্স ও ধাইসার এলাকার শাহজাহানের ছেলে রুবেল জয় এর নেতৃত্ব দেয়।

ওই এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার শ্রীনগর উপজেলা প্রতিনিধি অধির রাজবংশী ও দৈনিক রূপবাণী পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি মীর রাতুলের ওপর সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। তাদের মারধর করে। সন্ত্রাসীরা সাংবাদিকদের মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে এবং ক্যামেরা ও ব্যাগ ছিনতাই করে নিয়ে যায়। মারাত্মক আহত দুই সাংবাদিককে প্রথমে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় অধীর রাজবংশী ৬ মার্চ বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় চারজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। ঘটনার পর আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে স্থানীয় সাংবাদিকরা মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয় ও শ্রীনগর উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন।

শ্রীনগর প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. আওলাদ হোসেন বলেন, ‘আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে অথচ পুলিশ তাদের খুঁজে পাচ্ছে না। এটা ন্যক্কারজনক ঘটনা। ’

মুন্সীগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি, শ্রীনগর সার্কেল) মো. সামসুজ্জামান বাবু বলেন, ‘সাংবাদিক নির্যাতনের মামলার আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। আমি এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি। ’


মন্তব্য