kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মিয়ানমার থেকে ফিরল নিখোঁজ ১১ কিশোরী

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

২০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার মিতিঙ্গাছড়ি বৌদ্ধবিহার থেকে নিখোঁজ হওয়া ১১ কিশোরী শনিবার মিয়ানমার থেকে ফেরার পর টেকনাফ স্থলবন্দরে আটক করেছে বান্দরবানের ডিবি পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ওই ১১ কিশোরী বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারে যায়। তাদের মধ্যে বান্দরবানের রোয়াংছড়ির ছয়জন এবং কাপ্তাই অঞ্চলের পাঁচজন। এ ঘটনায় গত ১২ মার্চ রোয়াংছড়ি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তাদের অভিভাবকরা। পরে ১৩ মার্চ মিতিঙ্গাছড়ি বৌদ্ধবিহারের ভিক্ষু উ স্বি রি ভান্তেকে আটক করে বান্দরবান চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে উ স্বি রি ভান্তে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন।

জানতে চাইলে বান্দরবান ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইন্সপেক্টর মনজুর মোর্শেদ জানান, সোর্স নিযুক্ত করে কিশোরীদের মিয়ানমারের মংডু শহরতলি থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, বর্তমানে তাদের ডিবি কার্যালয়ে মহিলা পুলিশের মাধ্যমে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পাচারের পর তারা কোনো শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে কি না সেটি নিশ্চিত হতে রবিবার তাদের মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হবে।

এদিকে কিশোরীরা জানিয়েছে, মংডুর এক বৌদ্ধ ভিক্ষুর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে তারা গত ২৬ ফেব্রুয়ারি অবৈধভাবে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত পার হয়। ওই পথ দিয়েই তারা ফিরে এসেছে। কেউ তাদের পাচার বা অপহরণ করেনি।

এদিকে বৌদ্ধবিহার থেকে মা-বাবাকে না জানিয়ে অন্য দেশে পাঠানোর ঘটনাকে পাচারচেষ্টা বলে ধারণা করছে স্থানীয় লোকজন। তারা এ ঘটনার তদন্ত দাবি করেছে।

উল্লেখ্য, এসব কিশোরীকে বিনা খরচে লেখাপড়া, খাওয়া ও পোশাক-পরিচ্ছদ দেওয়ার কথা বলে জানুয়ারি মাসের বিভিন্ন সময়ে মিতিঙ্গাছড়ি বৌদ্ধবিহারে নিয়ে আসা হয়। কিছুদিন বৌদ্ধবিহারে থাকার পর গত ২৬ ফেব্রুয়ারি তারা নিখোঁজ হয়।


মন্তব্য