kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।


পাবনায় বিরোধের জেরে পুড়ল ১৬ ঘর

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পাবনা সদরে আধিপত্য নিয়ে প্রতিপক্ষের ১৬টি ঘর পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ছাড়া আরো কয়েক স্থানে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটেছে।

পাবনা : পাবনা সদরের ভাড়ারা ইউনিয়নে বালুমহালের আধিপত্য নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের জেরে পাঁচ পরিবারের ১৬টি ঘর আগুনে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

ক্ষতিগ্রস্তরা জানায়, স্থানীয় একটি বালুমহালের আধিপত্য নিয়ে ভাড়ারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ ও ভাড়ারা মসজিদ এলাকার লস্কর খাঁ গ্রুপের মধ্যে কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল। বিরোধের জেরে গতকাল সকাল ১১টার দিকে উভয় গ্রুপের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন লস্কর খাঁ, বাবুল সর্দার, শুকুর খাঁ, মোজা খাঁ, ইসমাইল শেখ ও নিশু শেখের বাড়িতে আগুন দেয়।

নাটোর : বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট অগ্নিকাণ্ডে একটি বাড়ির সব ঘর ও আসবাব পুড়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে নাটোর পৌর এলাকার আলাইপুুরের সুজিত দাস ও পলাশ দাসের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে অজিত দাস জানান, রাতে শোবার ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে পুরো বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এতে আসবাব ও সব ঘর পুড়ে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার ব্রিগেডের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে নেয়। অগ্নিকাণ্ডে প্রায় পাঁচ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নায়িরুজ্জামান জানান, তিনি শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্ত দুই ভাইয়ের প্রত্যেকের মধ্যে তিন হাজার টাকা ও ৩০ কেজি করে চাল বিতরণ করেন। তাঁদের গৃহ নির্মাণে ঢেউ টিনের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে ডিও লেটার পাঠানো হয়েছে।

নীলফামারী : নীলফামারীর জলঢাকা ও কিশোরগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে পাঁচ পরিবারের ১৭টি ঘর পুড়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতের ওই ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছে চারটি গরু ও দুটি ছাগল।

এলাকাবাসী জানায়, রাত ১টার দিকে কিশোরগঞ্জের রনচণ্ডি ইউনিয়নের বসুনিয়াপাড়া গ্রামের একরামূল হকের বাড়িতে বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় তিন পরিবারের ১১টি ঘর, আসবাব ও ঘরের মালামাল পুড়ে যায়। খবর পেয়ে জলঢাকা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে নেয়। অগ্নিকাণ্ডে ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

অন্যদিকে জলঢাকার মীরগঞ্জ ইউনিয়নের পাঠানপাড়া নদীরপাড় গ্রামে গত বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে অগ্নিকাণ্ডে অহিদুল ইসলাম ও তাঁর ছোট ভাই আব্দুল গফফারের ছয়টি ঘর, আসবাব, ৫০ মণ তামাকসহ মালামাল পুড়ে গেছে। এ ঘটনায় দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।


মন্তব্য