kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


চকরিয়া পৌর নির্বাচন

ভোটের আগে গুলির শব্দ

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আর মাত্র এক দিন পর কক্সবাজারের চকরিয়া পৌর নির্বাচন শেষপর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। কোনো কোনো এলাকায় গত কয়েক দিনের সহিংস ঘটনা এ সংশয় আরো বাড়িয়ে তুলেছে।

বিশেষ করে পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে রীতিমতো অস্ত্রের মহড়া চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আগামীকাল রবিবার এ পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী রেজাউল করিম অভিযোগ করেন, প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আবুল কালাম তাঁর কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়ে আসছে। সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়েও অস্ত্র দেখিয়ে হুমকি দিচ্ছে তাঁকে ভোট না দেওয়ার জন্য। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জালিয়াপাড়ায় নির্বাচনী উঠান বৈঠক করার সময় আবুল কালামের লোকজন তাঁর কর্মীদের ধাওয়া দেয়। পরে রাত ১২টার দিকে অবৈধ অস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে এলাকায় মহড়া দেয় এবং উপর্যুপরি ফাঁকা গুলি ছুড়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে। এ অবস্থায় এ ওয়ার্ডে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ নিয়ে তিনি শঙ্কিত।

এ বিষয়ে বক্তব্য নেওয়ার জন্য অভিযুক্ত কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল কালামের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. কামরুল আজম বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে ফাঁকা গুলি ছোড়ার খবর পেয়ে পুলিশের একটি দলকে জালিয়াপাড়া এলাকায় পাঠানো হয়। কে বা কারা ফাঁকা গুলি ছুড়েছে, তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

চকরিয়া থানার ওসি মো. জহিরুল ইসলাম খান বলেন, ২ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল কালামের জন্য ভোটের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট হতে দেওয়া যাবে না। যে যত বড় সন্ত্রাসীই হোক, তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচনের সহকারী রিটানিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, পৌরসভার ১৮টি কেন্দ্রই অতি ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এ জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে সার্বক্ষণিক বিপুলসংখ্যক পুলিশ, আনসার সদস্য নিয়োজিত থাকবে। দুই প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবের চারটি টিম আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মাঠে কাজ করবে। আর স্ট্রাইকিং ফোর্সের নেতৃত্বে থাকবেন ছয়জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।


মন্তব্য