kalerkantho


সাতক্ষীরা ও বাগেরহাটে ডাকাত হানা

সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট প্রতিনিধি   

১৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সাতক্ষীরা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক শেখ মুহাসীন আলীর বাড়িতে গতকাল শুক্রবার ভোরে ডাকাতদল হানা দিয়েছিল। ডাকাতরা কোনো কিছু না নিলেও বাধা পেয়ে তাঁর স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে।

আহত হাবিবা আক্তার কুমকুমকে (৪৪) আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভোররাত ৩টার দিকে সাতক্ষীরা পৌরসভার রাজারবাগান এলাকার সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর ওসমান গনি মিন্টুর বাড়ি-সংলগ্ন বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

মুহাসীন জানান, ভোররাতে ছয়-সাতজন সশস্ত্র ডাকাত তাঁর বাড়ির দক্ষিণ পাশের জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় শব্দ শুনে তাঁর ও তাঁর স্ত্রীর ঘুম ভাঙে। তিনি পাশের কক্ষে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ডাকাতরা তাঁকে ঘরে আটকে রেখে শব্দ না করার নির্দেশ দেয়। এ সময় ভয়ে তাঁর স্ত্রী চিৎকার করেন। ডাকাতরা তাঁর স্ত্রীর মাথা, হাত ও পায়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে জখম করে। তিনিও চিৎকার করে প্রতিবেশীদের ‘ডাকাত’ প্রতিরোধের অনুরোধ জানান। প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসায় ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ এসে তাঁর স্ত্রীকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ বলেন, ‘ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সোর্সের মাধ্যমে জড়িতদের শনাক্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে। ’

এদিকে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সংরক্ষিত ওয়ার্ডের এক নারী প্রার্থীর বাড়িতে ডাকাতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার হোগলাবুনিয়া ইউনিয়নের পাঠামারা গ্রামে প্রার্থী সুফিয়া বেগমের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে গতকাল শুক্রবার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তাদের দাবি, ডাকাতির ঘটনাটি সম্পূর্ণ সাজানো।

সুফিয়া বেগমের স্বামী আব্দুর রব হাওলাদার অভিযোগ করেন, আট থেকে ১০ জনের মুখোশপড়া একদল ডাকাত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কৌশলে দরজা খুলে ঘরে ঢোকে। এ সময় ডাকাতদলটি তাঁদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৮০ হাজার টাকা, চার ভরি স্বর্ণালংকারসহ দুই লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে।

এদিকে মোরেলগঞ্জ থানার ওসি তারক বিশ্বাস জানান, তিনিসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ওই বাড়ি পরিদর্শন করেছে। তাঁদের কাছে মনে হয়েছে যে, ডাকাতির ঘটনাটি সাজানো। নির্বাচনী সুবিধা নিতে মিথ্যা ডাকাতির অভিযোগ আনা হয়েছে বলে ওসি মনে করেন।


মন্তব্য