kalerkantho


দুই বন্ধুর ভোটযুদ্ধ

‘তুই চাল দিয়েছিস আমি গরু দেব’

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

১৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



‘তুই চাল দিয়েছিস আমি গরু দেব’

‘ভোটারদের তুই চাল দিয়েছিস, আমি গরু দেব। তুই যদি বিড়ি দিস, আমি দেব সিগারেট। ’ নির্বাচনে আচরণবিধি ভঙ্গ করে এভাবে প্রভাবিত করা হচ্ছে ভোটারদের। ভোটযুদ্ধে দুই সাধারণ সদস্য প্রার্থীর নিয়ম ভাঙার এ প্রকাশ্য মহড়া চলছে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার জয়নগর ইউনিয়নে। সরেজমিনে গতকাল শুক্রবার দুপুরে জয়নগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ২ নম্বর ওয়ার্ড ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

এলাকার সচেতন ভোটার গাজনা গ্রামের রফিকুল ইসলাম সানা জানান, ২ নম্বর ওয়ার্ডে ছয় শতাধিক ভোটার নিয়ে সাধারণ সদস্য পদে জয়ের জন্য লড়াই করছেন তিনজন প্রার্থী। তাঁদের মধ্যে মোরগ প্রতীকের রিজাউল বিশ্বাস (২৯) ও ফুটবল প্রতীকের আব্দুল আলীম গাজী (৩০) ঘনিষ্ঠ বন্ধু।

রিজাউল বিশ্বাস গত তিন দিন ধরে ভোট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি আদায় করে এলাকার গরিব ও অসচ্ছল পরিবার প্রতি ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করছেন। স্থানীয় সরসকাটি বাজারের মনিরুল সরদারের দোকান থেকে স্লিপের মাধ্যমে ভোটাররা তা গ্রহণ করছে।

ভোট আদায়ের পাল্টা জবাবে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আব্দুল আলীম গাজী ভোটারদের গরুর মাংস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

কুটিরমাঠ গ্রামের ভোটার রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী জিয়াদ আলী জানান, আব্দুল আলীম ক্ষেত্রপাড়া গ্রামের বজলু মোড়লের ৭৫ হাজার টাকা মূল্যের গরু কিনেছেন। কাল রবিবার তা জবাই করে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি মাংস পৌঁছে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

এ বিষয়ে প্রার্থী রিজাউল বিশ্বাস বলেন, ‘পাস করে জনসেবার নমুনা ভোটের আগে ভোটাররা দেখতে চাওয়ায় কয়েকটি পরিবারকে চাল কিনে দিয়েছি। ’

আরেক প্রার্থী আব্দুল আলীম বলেন, ‘রিজাউল ঘের ব্যবসায়ী। আমিও ঘের ব্যবসায়ী। ভোটারদের ও চাল কিনে দিয়েছে, আমি গরু দেব। ও যদি বিড়ি দেয়, আমি দেব সিগারেট। তাও এবার ভোটে ছেড়ে কথা কব (বলব) না। ’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা (জয়নগর ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসার) মাসুদুর রহমান বলেন, ‘কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’


মন্তব্য