kalerkantho


মাগুরায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দস্যু নিহত

মাগুরা প্রতিনিধি   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মাগুরার শালিখায় সড়কে গাছ ফেলে ডাকাতির সময় গত বুধবার রাতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ওবায়দুর রহমান (৩৫) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ওবায়দুর শালিখার হাটবাড়িয়া গ্রামের নেজবুল শিকদারের ছেলে।

তার বিরুদ্ধে মাগুরার বিভিন্ন থানায় চারটি ডাকাতি, দুটি চাঁদাবাজি ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় একটি মামলা রয়েছে।

এ ব্যাপারে শালিখা থানার ওসি আবু জিহাদ খান জানান, মাগুরা-যশোর মহাসড়কের রামকান্তপুর ব্রিজের কাছে সড়কে গাছ ফেলে ডাকাতির চেষ্টা করছিল সংঘবদ্ধ একদল ডাকাত। খবর পেয়ে রাত ১টার দিকে তিনি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। পরে ডাকাতদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ওবায়দুরকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক করা হয়। পরে মাগুরা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি ও গাছ কাটায় ব্যবহৃত দুটি করাত উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, দীর্ঘদিন ধরে ওবায়দুরসহ আন্তজেলা ডাকাতদল মাগুরা-যশোর সড়কের মঘি, ভাবনহাটি, রামকান্তপুরসহ একাধিক এলাকায় সড়কে ডাকাতি করে আসছিল। প্রতি রাতেই তারা সড়কে গাছ ফেলে মোটরসাইকেল আরোহী ও বাসের যাত্রীদের মালামাল লুট করে।

এর আগে ওবায়দুর পুলিশের হাতে আটক হয়ে ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিয়েছিল।

এদিকে নিহতের মামা কবির হোসেন মাগুরা সদর হাসপাতালে লাশ শনাক্ত করতে গিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে জানান, বুধবার দুপুরে পুলিশ ওবায়দুরকে শালিখার সীমাখালী বাজার থেকে আটক করে। আটকের খবর পেয়ে তাঁরা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। কিন্তু পুলিশ আটকের বিষয়টি অস্বীকার করে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে খবর পেয়ে সদর হাসপাতালে গিয়ে তাঁরা ওবায়দুরের লাশ শনাক্ত করেন। তার নামে দুটি ডাকাতি মামলা রয়েছে। জামিনে মুক্তি পেয়ে সম্প্রতি সে এলাকায় অবস্থান করছিল বলেও জানান কবির হোসেন।


মন্তব্য