kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।

গৃহবধূকে হত্যা

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



যশোরের মণিরামপুরে হাজিরা খাতুন নামের এক গৃহবধূকে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গত সোমবার উপজেলার জামলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত হাফিজুর রহমান পলাতক রয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ১৪ বছর আগে উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের আমিনুদ্দিন গাজীর মেয়ে হাজিরা খাতুনের সঙ্গে পাশের জামলা গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে হাফিজুর রহমানের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই হাফিজুর নানা অজুহাতে স্ত্রীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাত। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে আমিনুদ্দিন বিভিন্ন সময়ে জামাতার হাতে লক্ষাধিক টাকা তুলে দেন। সর্বশেষ সোমবার বিকেলে টাকার জন্য স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালায় হাফিজুর। একপর্যায় হাজিরার মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করলে তিনি গুরুতর আহত হন। অবস্থা বেগতিক দেখে স্ত্রীর গলায় দড়ি বেঁধে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে যায় হাফিজুর। খবর পেয়ে এলাকাবাসী তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতেই তাঁর মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে হাজিরার বড় ভাই রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘হাফিজুর আমার বোনকে হত্যা করেছে। আমরা এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। ’ এদিকে মণিরামপুর থানার ওসি তাহেরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য