kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ছয় চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

জয়পুরহাট প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ছয় চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

জয়পুরহাট সদরের ৯টি ইউনিয়ন পরিষদে আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে ছয়টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁরা সবাই আওয়ামী লীগদলীয় প্রার্থী। এ ছাড়া পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদে সাতজন ইউপি সদস্যও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ওই সব ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তারা গতকাল মঙ্গলবার এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাট সদরের ৯টির মধ্যে ছয়টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁরা হলেন ধলাহারে ফয়েজ উদ্দিন, দোগাছিতে জহুরুল ইসলাম, মোহাম্মদাবাদে আতাউর রহমান, পুরানাপৈলে খোরশেদ আলম, আমদই ইউনিয়নে শাহানুর আলম ও বম্বু ইউনিয়নে মোল্লা সামছুল আলম। তাঁরা সবাই আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এর মধ্যে দোগাছি ও ধলাহারে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী, আমদই ইউনিয়নে কাগজপত্রে ত্রুটি দেখিয়ে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ছাড়া অন্য সব প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন গত ১৩ মার্চ মোহাম্মদাবাদ, পুরানাপৈল ও বম্বু ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ছাড়া অন্য সব প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তাঁদের নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়। অন্যদিকে প্রার্থী না থাকা ও প্রার্থিতা প্রত্যাহার হওয়ায় বম্বু, চকবরকত, দোগাছি, ভাদসা ও আমদই ইউনিয়নের সাতটি ওয়ার্ডে সাতজন ইউপি সদস্যকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়। ওই সাতজনই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী।

এ ছাড়া জামালপুর, ভাদসা ও চকবরকত ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আটজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আর ৯টি ইউনিয়নের ২৭ ওয়ার্ডে সংরক্ষিত সদস্য পদে ১১১ জন নারী প্রার্থী এবং ৭৪টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ২৩৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। জয়পুরহাট উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল মোত্তালেব বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাঁদের নির্বাচিত ঘোষণা করে মঙ্গলবার রিটার্নিং অফিসাররা প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন।


মন্তব্য