kalerkantho


নড়িয়ায় যুবককে কুপিয়ে হত্যা

গা ঢাকা দিলেন দুই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

১৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



শরীয়তপুরের নড়িয়ার পণ্ডিতসার শিমুলতলা গ্রামে রিগান দেওয়ান (২৫) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গত রবিবার রাতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে রিগানের মা-বাবার মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে তাঁকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

খবর পেয়ে গতকাল সোমবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ইমরান হাওলাদার নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

জানা গেছে, বাড়ির পাশে মুদি দোকানের ব্যবসা করতেন রিগান দেওয়ান। শরীয়তপুর জেলা যুবলীগের সহসভাপতি নাছির ফকির ও পণ্ডিতসার গ্রামের যুবলীগকর্মী মিন্টু মিরমালতের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। কয়েক দিন আগে ডিঙ্গামানিক ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহ আলম তপদার ও মিন্টু মিরমালত রিগানের দোকানে গিয়ে নাছির ফকিরের লোকজনকে তার দোকানে বসতে দিতে নিষেধ করে। এ নিয়ে রিগানের সঙ্গে তাঁদের কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তাঁকে হত্যার হুমকি দেন শাহ আলম তপদার ও মিন্টু মিরমালত। রবিবার রাতে ঘরে ঢুকে মা-বাবার সামনে রিগানকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ সময় শাহ আলম তপদার ও মিন্টু মিরমালতকে চিনতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন নিহতের মা মনোয়ারা বেগম।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নড়িয়া থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

রিগান দেওয়ানের মা মনোয়ারা বেগম বলেন, ‘আমার মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে আমার সামনেই আমার সন্তানকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। হত্যাকারীদের সঙ্গে শাহ আলম তপদার ও মিন্টু মিরমালত ছিল। চাকু দিয়ে কুপিয়ে আমার বাবার ভুঁড়ি বের করে দিয়েছে ওরা। আমি আমার সন্তানের হত্যাকারীদের বিচার চাই। ’

 


মন্তব্য