kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


স্বামীর চোখ তুলে নিল দুর্বৃত্তরা

স্ত্রীর দিকে সন্দেহের চোখ

পিরোজপুর প্রতিনিধি   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মালিখালীতে শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসা যুবকের দুই চোখ তুলে নেওয়া হয়েছে। পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তাঁর শ্যালক ও স্ত্রীকে আটক করেছে।

যুবকের নাম মাহাবুব মোল্লা (৩২)। তাঁর সঙ্গে হাসপাতালে আসা স্ত্রী ফজিলা বেগমকে আটক করেছে নাজিরপুর থানা পুলিশ। মাহাবুবের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া ও পাশের বাগেরহাট সদর থানায় দুটি চুরির মামলা রয়েছে। মাহাবুব মঠবাড়িয়া উপজেলার উত্তর মিঠাখালী গ্রামের মৃত আবু তালেবের ছেলে।

ফজিলা বেগম জানান, সম্প্রতি নাজিরপুরের শেখমাটিয়া ইউনিয়নে ছাত্রদল নেতা সামসুল হক ছোট্ট হত্যা মামলার প্রধান আসামি মোয়াজ্জেম সিকদারের বাড়িতে কাজ করতেন মাহাবুব। এর দুই দিন পর গত বৃহস্পতিবার তিনি শ্বশুর বাড়িতে পালাতে আসেন। গত শনিবার রাতে তুতবাড়ির একটি পানের বরজে পান চুরি করে ধরা পড়েন। স্থানীয় জনতা তাঁর দুই চোখ উৎপাটন করে রাস্তার ওপর ফেলে রাখে। গতকাল রবিবার সকালে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু স্ত্রীর বক্তব্যকে অস্বীকার করে মাহাবুব মোল্লা বলেন, ‘শ্বশুর বাড়ি থেকে স্ত্রীকে নেওয়ার জন্য আসলে স্ত্রীসহ শ্যালক আজগর, ফাইজুল ও বাবুল আমার হাত-পা বেঁধে চোখ উৎপাটন করে রাস্তায় ফেলে রাখে। ’ এ বিষয়ে নাজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন মল্লিক বলেন, ‘মাহাবুব গত বছর রোজার সময় শ্বশুর বাড়িতে অবস্থানকালে চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়েন। এ ঘটনার দায়ভার শ্বশুর বাড়ির লোকজনের ওপর পড়লে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে মাহাবুবের চোখ উপড়ে ফেলে। ’


মন্তব্য