kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সোয়া কোটি টাকার প্রকল্প দায়সারা কাজ

রাজবাড়ী

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির জামালপুর ইউনিয়নে খাল খনন চলছে। কিন্তু খননকাজ দায়সারাভাবে চলছে বলে অভিযোগ তুলেছে স্থানীয়রা।

তাদের অভিযোগ, হড়াই নদীর শাখা খালের ওই খননকাজ এগোচ্ছে অপরিকল্পিতভাবে। মেশিন (বেকু) দিয়ে শুধু কোনো রকমে মাটি তুলে খালের দুই পাড়ে রাখা হচ্ছে। ফলে বৃষ্টি হলে খালের মাটি ফের খালে গিয়েই পড়বে। গচ্চা যাবে এক কোটি ২৮ লাখ টাকার কাজ। তবে প্রকল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের দাবি, কাজে কোনো দায়সারাভাব নেই।

৭ দশমিক ২ কিলোমিটার দীর্ঘ এ খননকাজ বাস্তবায়ন করছে স্থানীয় ‘রতনদিয়া বালুঘাট পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি’। এর সভাপতি আইরিন বেগম। অভিযোগ উঠেছে, তিনি এখন পর্যন্ত একবারও খনন এলাকায় যাননি। আইরিন বেগমের বদলে তদারক করছেন তাঁর শ্বশুর ও জামালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিয়া।

স্থানীয়রা জানায়, বর্ষায় খালটি পানিতে কানায় কানায় ভরা থাকে। কিন্তু শীতকালের ছবি পুরো উল্টো। শীত মৌসুমে কৃষকরা জমিতে পানি দেয় শ্যালো মেশিনে। তারা আরো জানায়, গত বছর খননকাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ‘অজ্ঞাত’ কারণে হয়নি। এখন যেভাবে খনন চলছে, তাতে দু-একবার বৃষ্টি নামলে দুই পাড়ের মাটির স্তূপ ফের খালে গিয়ে পড়বে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি বলেন, বর্ষায় খালটি হাতে গোনা কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তির দখলে চলে যায়। মূলত তাঁদের ইশারায় খননকাজ চলছে। প্রভাবশালীদের পুকুরের সঙ্গে সংযোগ রাখা হচ্ছে খালের। ফলে দুই পাশের পার স্থানীয়রা চলাচলের জন্য ব্যবহার করতে পারবে না।

গিয়াস উদ্দিন মিয়া জানান, ছেলের স্ত্রীর পক্ষে তিনিই কাজটি তদারক করছেন। গত বছর কাজটি হওয়ার কথা থাকলেও কিছু সমস্যার কারণে করা হয়নি। এ বছরের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কাজ শুরু হয়েছে। চলবে ৩০ মার্চ পর্যন্ত। ইতিমধ্যে অর্ধেক কাজ শেষ হয়েছে। গিয়াস উদ্দিন দাবি করেন, কাজে কোনো অনিয়ম হচ্ছে না।

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রকৌশলী মাহাবুবুল হক জানান, বৃহত্তর ময়মনসিংহ, সিলেট ও ফরিদপুর এলাকার ক্ষুদ্রকার পানিসম্পদ উন্নয়ন সেক্টর প্রকল্পের আওতায় কাজটি হচ্ছে। আর রতনদিয়া বালুঘাট পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির মাধ্যমে তা বাস্তবায়ন করছে এলজিইডি। কাজের মেয়াদ গত বছরের ৩০ এপ্রিল শেষ হয়। পরে রতনদিয়া বালুঘাট পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়।

রাজবাড়ী এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী খান এ শামিম জানান, এলজিইডির প্রধান কার্যালয় থেকে কাজের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। সেই হিসাবে আগামী ৩০ মার্চ খননকাজ শেষ হবে। কাজে কোনো দায়সারাভাব নেই বলেও দাবি করেন তিনি।


মন্তব্য