kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জাবিতে ছাত্রদলের দুই কর্মীকে পেটাল ছাত্রলীগ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের দুই কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়েছে জাবি শাখা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। বুধবার ভোরে মওলানা ভাসানী হলে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার ছাত্রদলকর্মীরা হলেন মওলানা ভাসানী হলের ৪১তম ব্যাচের ছাত্র আসাদুজ্জামান আসাদ (ইংরেজি বিভাগ), নুরুল হক (পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ)। তাঁদের বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রদল করার কারণে বুধবার মওলানা ভাসানী হলের আসাদুজ্জামান আসাদ ও নুরুল হককে ছাত্রলীগ নেতা ফিরোজুর রহমান সবুজ, মেহেদি হাসান রোমানসহ (সহসম্পাদক) ১৫-২০ জন মিলে হলের কমনরুমে ডেকে নিয়ে মারধর করে। তারা সবাই শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোর্শেদুর রহমান আকন্দের অনুসারী।

পরে তাঁদের উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। যোগাযোগ করা হলে মওলানা ভাসানী হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, বিভিন্ন সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা ছাত্রলীগ সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করে আসছিল। সর্বশেষ বুধবার গোপন মিটিং করেছে এমন খবর পেয়ে তাদের মারধর করা হয়েছে। তবে মিটিংয়ের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আহতরা।

এদিকে এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম সৈকত বলেন, ছাত্রলীগই ক্যাম্পাসে অপতত্পরতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ছাত্রদলকর্মীদের মারধর করছে। তিনি অভিযুক্ত ছাত্রলীগ ক্যাডারদের বিচার দাবি করেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মওলানা ভাসানী হলের শিক্ষার্থী মোর্শেদুর রহমান আকন্দ জানান, ছাত্রদলের নতুন কমিটি দেওয়ায় বিভিন্নভাবে ছাত্রদলের জুনিয়র কর্মীরা ক্যাম্পাস অস্থিতিশীল করার পাঁয়তারা করছে। এ জন্য জুনিয়ররা তাদের মারধর করেছে। কেউ ভবিষ্যতে এমন অপতত্পরতা সৃষ্টি করতে চাইলে জাবি ছাত্রলীগ তাদের শক্ত হাতে দমন করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তপন কুমার সাহা বলেন, ‘এখনো এ ধরনের কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’


মন্তব্য