নারী দিবসেও নেই রেহাই -333745 | প্রিয় দেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


নারী দিবসেও নেই রেহাই

নির্যাতনে এক গৃহবধূ মরলেন আরেকজন কাতরাচ্ছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা) ও ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আন্তর্জাতিক নারী দিবস ছিল গতকাল মঙ্গলবার। এমন একটি দিনেও রেহাই পেল না নারীরা। নির্যাতনে এক নারী মারা গেছেন, আরেক নারী হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন।

আশুলিয়া থানার এসআই কামরুল ইসলাম জানান, গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে আশুলিয়ার দোসাইদের সুরুজ মিয়ার ভাড়া বাড়ি থেকে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তাঁর নাম রুজিফা আক্তার (২৫)। স্বামী আব্দুল বারেক তাঁকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক কামরুজ্জামান জানান, গত সোমবার রাতে লঙ্গারপাড় গ্রামের গৃহবধূ ফাতেমাকে (২৫) জ্বর হওয়ার তথ্য দিয়ে হাসপাতালে আনা হয়। সারা রাত চেতনা ফিরে না আসায় রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য গতকাল মঙ্গলবার ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। খবর নিয়ে জানা যায়, বিকেল ৩টা পর্যন্ত তাঁর জ্ঞান ফেরেনি। ওই নারীর মা রহিমা খাতুন বলেন, তাঁর স্বামী মারা গেছেন। প্রায় দুই বছর আগে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন একই পাড়ার মাহমুদ হোসেনের ছেলে মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে। বিয়ের সময় জামাইকে প্রায় ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দিয়েছেন। এর পরও স্বামীর মন ভরেনি। এ অবস্থায় ফের যৌতুক চেয়ে অব্যাহত নির্যাতন চালায় মেয়ের ওপর। গত সোমবার রাত প্রায় ১টার দিকে লোকজনের চেঁচামেচি শুনে দরজা খুলে দেখেন বারান্দায় প্রায় মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে মেয়ে।

তবে তাঁর বাবা মাহমুদ হোসেন (৬৫) বলেন, ‘ছেলের বউ একটু রাগী। তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে মাঝেমধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হয়। এতে ছেলের বউ একগুঁয়েমি করে খাওয়া ছেড়ে দেয়। ফলে শরীর দুর্বল ও জ্বর আসে। গতকাল তার শরীর দুর্বল হয়ে গেলে তার বাবার বাড়ির কাছে সুমন ডাক্তারকে দেখিয়ে মায়ের কাছে রাখতে চেয়েছিল তাঁর ছেলেরা। কোনো নির্যাতনের ঘটনা ঘটেনি।’

মন্তব্য