তুলে নিয়ে তরুণীর রগ কাটল দুর্বৃত্তরা-331874 | প্রিয় দেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১০ আশ্বিন ১৪২৩ । ২২ জিলহজ ১৪৩৭


নৃশংসতা

তুলে নিয়ে তরুণীর রগ কাটল দুর্বৃত্তরা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর   

৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



তুলে নিয়ে তরুণীর রগ কাটল দুর্বৃত্তরা

হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে ময়নার। ছবি : কালের কণ্ঠ

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার কেউন্দিয়া গ্রামে এক তরুণীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে অজ্ঞাতপরিচয় দুর্বৃত্তরা হাত ও পায়ের রগ কেটে দিয়েছে। গত বুধবার রাতে এ ঘটনার পর থেকে তাঁর সাবেক স্বামী পলাতক।

গুরুতর আহত ময়না আক্তারকে (২২) আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর সাবেক স্বামী সহিদ মৃধা ঝালকাঠির বারুহার গ্রামের একুব আলী মৃধার ছেলে। তাঁকে না পেয়ে পুলিশ গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে সহিদের ভাই মো. নজরুল ইসলাম মৃধাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। ময়না কেউন্দিয়া গ্রামের স মিল শ্রমিক মো. ইমাম হোসেন মৃধার বড় মেয়ে। সম্প্রতি স্বামী কর্তৃক বিয়েবিচ্ছেদের পর তিনি বাবার বাড়িতে বাস করছিলেন। থানা ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ময়না বাবার বাড়িতে অজু করার জন্য বসতঘরের পাশের পুকুরঘাটে যান। এ সময় ওত পেতে থাকা চার-পাঁচজন মুখোশধারী তাঁকে তুলে নিয়ে যায়। বাড়ি থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে মোল্লাবাড়ী মাঠের ভেতর নিয়ে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে প্রথমে দুই পায়ের গোড়ালির রগ কেটে দেয়। পরে বাঁ হাতের কবজির রগ কাটে। ওই গৃহবধূকে উদ্ধারকারী কেউন্দিয়া গ্রামের মো. আনিসুর রহমান জানান, তিনি ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্রার্থী হিসেবে রাতে নির্বাচনী কাজ সেরে বাড়ি ফিরছিলেন। আনুমানিক রাত সাড়ে ৯টার দিকে কৃষিজমির ভেতর নারীর চিৎকারের শব্দ পান। টর্চ জ্বালিয়ে কাছে গিয়ে মাঠের ভেতর রক্তাক্ত অবস্থায় তরুণীকে কাতরাতে দেখেন। তিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে মুঠোফোনে বিষয়টি অবহিত করেন। ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুল্যান্স পাঠানো হলে রাত ১০টার দিকে গ্রামবাসী আহতকে উদ্ধার করে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে গভীর রাতে তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। মেয়ের বাবা ইমাম হোসেন মৃধা জানান, এক বছর আগে সহিদের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে হয়। তারা মেয়ের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালান। গত ২৫ দিন আগে সহিদ স্ত্রীকে পরিত্যাগ করে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। ইমাম হোসেন কান্নায় ভেঙে পড়ে বলেন, ‘ঘটনার সময় আমি কাউখালী সদরে স মিলে কাজ করছিলাম। মেয়ের খবর পেয়ে বাড়ি ফিরে দেখি ওকে হাসপাতালে নিয়ে গেছে।’ এ ব্যাপারে কাউখালী থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, আহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 

প্রতিবাদে মানববন্ধন : এ ঘটনার প্রতিবাদ ও দুর্বৃত্তদের বিচার দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মানববন্ধন করেছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। কাউখালী মহিলা পরিষদের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ সড়কে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন হয়েছে।

মন্তব্য