kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নাসিরনগর

মন্ত্রীর মনোনয়নে জেলা আওয়ামী লীগের ‘না’

নালিশ জানানো হলো কেন্দ্রে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মন্ত্রীর মনোনয়নে জেলা আওয়ামী লীগের ‘না’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের ১২টি ইউনিয়ন পরিষদের জন্য দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হক। তবে বিষয়টি দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী উল্লেখ করে তা প্রত্যাখ্যান করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

পাশাপাশি এ নিয়ে নেতারা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকারের সাফ কথা, ‘মন্ত্রী এটা কোনোভাবেই করতে পারেন না। তাঁর দেওয়া কোনো তালিকা অবশ্য আমরা এখনো পাইনি। পেলেও তা গ্রহণ করব না। বিধি অনুসারে ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা সভাপতি-সম্পাদক মিলে প্রার্থী বাছাই করবেন। এরপর ওই তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হবে। এ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য উপজেলা কমিটিকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ’

তবে এখানেই শেষ নয়। আল-মামুন সরকার জানিয়েছেন, মন্ত্রীর বিরুদ্ধে কেন্দ্রে নালিশ করা হয়েছে। কোনো প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে দলীয় প্রার্থী বাছাই করে তিনি দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করায় কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে মন্ত্রী নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ করেন জেলা আওয়ামী লীগের ওই নেতা।

যদিও গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নাসিরনগরের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়নি। তবে ২৩ এপ্রিল ভোট গ্রহণের সম্ভাব্য তারিখ ধরে নিয়ে নাসিরনগরে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন প্রক্রিয়া শুরু করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সম্প্রতি চার দিনের সফরে নাসিরনগরে আসেন স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হক। গত শনি ও রবিবার তিনি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাসহ প্রার্থীদের ডেকে কথা বলেন। পরে তিনি ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ১২টির চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন। এর মধ্যে চাতলপাড় ইউনিয়নে শেখ আবদুল আহাদ, ভলাকুট ইউনিয়নে এ কে এম বাকি বিল্লাহ জুয়েল, গোয়ালনগর ইউনিয়নে ডা. মো. কিরন মিয়া, কুণ্ডা ইউনিয়নে ওয়াছ আলী, সদর ইউনিয়নে মো. আবুল হাশেম, বুড়িশ্বর ইউনিয়নে এ টি এম মোজাম্মেল হক মুকুল, ফান্দাউক ইউনিয়নে হাজি ফারুকুজ্জামান ফারুক, গুনিয়াউক ইউনিয়নে হুমায়ুন কবির দরবেশ, চাপরতলা ইউনিয়নে আবদুল হামিদ, গোকর্ণ ইউনিয়নে হাসান খান, হরিপুর ইউনিয়নে মো. ফারুক মিয়া, ধরমণ্ডল ইউনিয়নে বাহার উদ্দিন চৌধুরীর নাম দলের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন তিনি। পূর্বভাগ ইউনিয়নের জন্য গতকাল পর্যন্ত কারো নাম ঘোষণা করা হয়নি।

তবে এ বিষয়ে নাসিরনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ টি এম মনিরুজ্জামান সরকার গতকাল বৃহস্পতিবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মন্ত্রী মহোদয় একা প্রার্থী ঠিক করেননি। তৃণমূলের নেতা থেকে শুরু করে প্রত্যেক প্রার্থীর সঙ্গে কথা বলে সবাই মিলে চেয়ারম্যান প্রার্থী বাছাই করা হয়েছে। ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা আওয়ামী লীগের সমন্বয়ে প্রার্থী বাছাই করার জন্য জেলা থেকে যে চিঠি এসেছে, এ নিয়ে কী করা যায় সেটা আমাদের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকও বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। ’


মন্তব্য