kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঘুষিতে চিকিৎসকের দাঁত ফেললেন আ. লীগ নেতা

খুলনা অফিস   

২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



তেরখাদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আবদুল্লাহ আল মামুনকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকদের দাবি, তেরখাদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী এস এম ওহিদুজ্জামানের ঘুষিতে ওই চিকিৎসকের তিনটি দাঁত পড়ে গেছে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা প্রেসক্লাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে চিকিৎসকদের সংগঠন বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করে।

চিকিৎসক নেতারা জানান, চিকিৎসক মামুন গত রবিবার রাত ৯টার দিকে জরুরি বিভাগে দায়িত্বে ছিলেন। এ সময় কয়েকজন লোক এসে জানায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী এস এম ওহিদুজ্জামানের স্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এ জন্য ওই নেতার বাসায় গিয়ে রোগীর চিকিৎসা করাতে হবে। ডা. মামুন বাসায় যাওয়া সম্ভব না জানিয়ে অন্য একজন সহকারীকে আওয়ামী লীগ নেতার বাসায় পাঠান। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে পরবর্তী সময়ে ওহিদুজ্জামান লোকজন নিয়ে এসে গালাগাল করেন। একপর্যায়ে তিনিসহ তাঁর সহযোগীরা হাসপাতালের ভেতরে চিকিৎসককে কিল-ঘুষি, লাথি-চড়সহ বেদমভাবে প্রহার করে। এ সময় মামুনের তিনটি দাঁত পড়ে যায়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএমএ খুলনা জেলা সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলম, সহসভাপতি ডা. ধীরাজ মোহন বিশ্বাস, ডা. গাজী মিজানুর রহমান, ডা. মোল্লা হারুন-অর-রশিদ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. মেহেদী নেওয়াজ, ডা. আনোয়ার সাহাদৎ তুহিন প্রমুখ।


মন্তব্য