জড়িতদের বিচার দাবিতে উত্তপ্ত-330612 | প্রিয় দেশ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


বখাটেপনা

জড়িতদের বিচার দাবিতে উত্তপ্ত মানিকগঞ্জ

পিরোজপুরে দোষীদের শাস্তি চেয়ে মানববন্ধন

মানিকগঞ্জ ও পিরোজপুর প্রতিনিধি   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বখাটের গাড়ির ধাক্কায় নিহত স্কুল ছাত্রী ময়নার ঘাতকদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে তার সহপাঠী, শিক্ষক ও এলাকাবাসী। গতকাল সোমবার সকালে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বানিয়াজুড়িতে ওই কর্মসূচি পালিত হয়। এদিকে এ পর্যন্ত আসামি তিনজনের কাউকেই গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। মামলার এজাহারে ময়নাকে উত্ত্যক্ত করার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি।

গত বৃহস্পতিবার স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে বখাটের গাড়ির ধাক্কায় ময়না গুরুতর আহত হয়। পরে গত শনিবার রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সে মারা যায়। এ ঘটনায় ময়নার বাবা তৈয়ব আলী বাদী হয়ে রাব্বি, সোহান ও অটুটকে আসামি করে মামলা করেন। তাঁরা জানান, মামলা করার সময় ময়নাকে উত্ত্যক্ত করার বিষয়টি পুলিশকে জানানো হলেও এজাহারে বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি।

মামলার সাক্ষী করা হয়েছে ময়নার দুই বান্ধবী আনিছা আক্তার ও তামান্না ইয়াসমিনকে। তাদের সামনেই ঘটনটি ঘটে। কালের কণ্ঠকে তারা জানায়, স্কুল থেকে ময়নাসহ তারা বাড়ি ফিরছিল রাস্তার বাঁ পাশ ঘেঁষে। পেছন থেকে গাড়িটি এসে তাদের ধাক্কা দেয়। আনিছা ও তামান্না রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। কিন্তু গাড়ির পেছনের চাকা ময়নার শরীরের ওপর দিয়ে চলে যায়। আনিছা বলে, ধাক্কায় সে অজ্ঞান হয়ে পড়লেও তেমন কোনো আঘাত পায়নি। তামান্নাও তেমন কোনো আঘাত পায়নি। তামান্না জানায়, জ্ঞান ফেরার পর সে দেখতে পায় রক্তাক্ত অবস্থায় ময়না রাস্তার পাশে পড়ে আছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘিওর থানার এসআই পলাশ সরকার জানান, আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। মামলায় ময়নাকে উত্ত্যক্ত করার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি। কারণ সেদিনের ঘটনাটি ছিল দুর্ঘটনা। যে কারণে দুর্ঘটনাজনিত কারণে হত্যার মামলা নেওয়া হয়েছে।

এদিকে পিরোজপুরে বখাটেদের উৎপাত সইতে না পেরে এক স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় দোষীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা। গতকাল সোমবার সকালে শহরের ক্লাব রোডে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। নিহত স্কুল ছাত্রী শারমিন আক্তার তামান্না শহরের করিমুন্নেছা বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন আব্দুল হালিম, স্বপন কুমার চক্রবর্তী, হারুন-অর-রশিদ, খালিদ আবু, লামিয়া আক্তার, জান্নাতুল মাওয়া প্রমুখ। প্রসঙ্গত, স্থানীয় কয়েকজন বখাটে বেশ কিছুদিন ধরে শারমিনকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এ সময় পথে আটকে শ্লীলতাহানি করার পাশাপাশি ওই ছবি তোলে। গত ২২ ফেব্রুয়ারি তার ওই ছবি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এ নিয়ে ভয়, লজ্জায় গত ২৩ ফেব্রুয়ারি শারমিন সুলতানা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

মন্তব্য