kalerkantho


প্রত্যাবর্তন

বেদের মেয়ে জোসনা

ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৮৯ সালে। ছবিটির গান বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে আবার মুক্তি পেল দিনকয়েক আগে। গানবাংলা টেলিভিশনের উইন্ড অব চেঞ্জ অনুষ্ঠান মারফত। এন্ড্রু কিশোরই নতুন করে গানটি গেয়েছেন। মাহবুবর রহমান সুমন জেনেছেন আরো কিছু কথা

২১ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



বেদের মেয়ে জোসনা

গানটির কিছু কথা

বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে

আসি আসি বলে জোসনা ফাঁকি দিয়েছে

বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে

আসি আসি বলে জোসনা ফাঁকি দিয়েছে

 

তুমি জোসনা হেথা দিয়েছিলে কথা

তোমারে না দেখলে আমার প্রাণে লাগে ব্যথা

 

বল তুমি এখানেতে আসতে কতক্ষণ

তোমারে না দেখলে আমার ঘরে রয় না মন

বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে

আসি আসি বলে জোসনা ফাঁকি দিয়েছে

 

(এবার জোসনা বলছে)

আমি যখন রানতে বসি বন্ধু বাজায় বাঁশি

রান্নাবাড়া রেখে আমি কেমন করে আসি

দাদারে দাদিরে আমি কী দিয়ে বোঝাই

কাঙ্খে কলসি নিয়ে আমি প্রেম যমুনায় যাই...

 

গানবাংলা টিভি গান দেখায় দিনভর। গান নিয়েই টিভিটির সব কিছু। উইন্ড অব চেঞ্জ অনুষ্ঠানটিতে পুরনো গান নতুনরূপে পরিবেশিত হয়। বলা চলে ফিউশন গানের অনুষ্ঠান উইন্ড অব চেঞ্জ। এর এক ও দুই নম্বর সিজন দারুণ জনপ্রিয় হওয়ায় গেল ঈদে সিজন থ্রি প্রচারিত হয়। এতে গান করেছেন কাঙ্গালিনী সুফিয়া, এন্ড্রু কিশোর, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, আগুন, হায়দার হোসেন, শাহানা বাজপায়ী, অর্থহীনের সুমন প্রমুখ। ২০টি দেশের ৩৫ জন সংগীতকার (মিউজিশিয়ান) এতে অংশ নিয়েছেন। যেমন—ড্রামে ছিলেন হাঙ্গেরির গার্গো বরলাই, পারকাসনে ভারতের শিবামনি, বেইজ গিটারে রাশিয়ার আন্তন। ভায়োলিনে ছিলেন পুরো একটি দল—রাশিয়ার আনা রাকিতা, পোল্যান্ডের অ্যালিসিয়া ও মাগদা, রোমানিয়ার অ্যান্দ্রেয়া, ইউক্রেনের রাসালানা প্রমুখ। চেলোতেও ছিলেন একদল—আর্মেনিয়ার আর্তম মানুকিন, পোল্যান্ডের ইসাবেলা, রাশিয়ার আনা প্রমুখ। কি-বোর্ড বাজিয়েছেন লাটভিয়ার আনা ভাইভ ও রোমানিয়ার লরা লাজারেসকু। বাঁশিতে যুক্তরাষ্ট্রের রাশিকা যেমন ছিলেন, পাকিস্তানের আহসানও ছিলেন। এস্রাজ বাজিয়েছেন ভারতের আরশাদ খান। স্পেনের ডানিয়েল ও পাকিস্তানের মিকাল হাসান গিটার বাজিয়েছেন।

 

সেই ১৯৮৯ সাল

বেদের মেয়ে জোসনা মুক্তি পেয়েছিল ১৯৮৯ সালে। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের অন্যতম ব্যবসাসফল ছবি। অঞ্জু ঘোষ ও ইলিয়াস কাঞ্চন ছিলেন মুখ্য ভূমিকায়। বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে গানটি ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছিল। গানটির সুর করেছিলেন আবু তাহের। গেয়েছিলেন রুনা লায়লা ও এন্ড্রু কিশোর। টালিউডও ছবিটি আবার বানিয়েছিল। সেখানে অভিনয় করেছিলেন অঞ্জু ঘোষ ও চিরঞ্জিত।

 

বেদের মেয়ে জোসনা-২০১৮

বিএফডিসিতে ১৫ এপ্রিল উইন্ড অব চেঞ্জ সিজন থ্রি ধারণ শুরু হয়। পরের দিনই ধারণ করা হয় বেদের মেয়ে জোসনার গানটি। এন্ড্রু কিশোরের সঙ্গে এবার ছিলেন লুইপা। সংগীত পরিচালনায় ছিলেন কৌশিক হোসেন তাপস। ঈদে গানবাংলা টিভিতে প্রচারিত হয়। আর গানবাংলার ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পায় ২০ জুন। গানটি এখানে চার লাখেরও বেশি মানুষ দেখেছে। মন্তব্য করেছেন তিন শর বেশি মানুষ। একজন যেমন রাকিবুল ইসলাম। লিখেছেন, অনেক দিন পর আবার নতুন করে গানটা শুনতে পেয়ে অনেক ভালো লাগল।

 

গানটি এবার স্বাধীন

এন্ড্রু কিশোর

প্রায় ৩০ বছর আগে গেয়েছেন। এখন আবার গাইলেন। কেমন লাগল?

সে সময় ছবিটাকে মাথায় রেখে গানটির সুর ও সংগীত করা হয়েছিল। এবার তো গানটা স্বাধীন। সুর ও সংগীত করা হয়েছে স্বাধীনতা নিয়েই। বেশ অন্য রকম লেগেছে।

তখনকার কোনো স্মৃতি?

চলচ্চিত্রটির পরিচালক ছিলেন তোজাম্মেল হক বকুল। একদিন তিনি বললেন, বস, আমি নিজের গল্প থেকে একটা সিনেমা করতে যাচ্ছি। আপনাকে দরকার। তারপর আমি, সংগীত পরিচালক তাহের ভাই, প্রযোজক আব্বাস ভাই এবং আরো অনেকে বসলাম। তখন অনেকটা পারিবারিক আবহ ছিল। সবাই কষ্ট করে একটা ছবি তুলতাম। গানগুলোও সবাই মিলেই তৈরি হলো। ছবি মুক্তি পাওয়ার পর গানও হিট হলো। এক মাসে এক লাখ ক্যাসেট বিক্রি হয়ে গিয়েছিল। এটা একটা রেকর্ড।

নতুনভাবে গানটি গেয়ে কেমন সাড়া পেলেন?

অনেকেই প্রশংসা করেছেন। এমনও শ্রোতা পেলাম, যিনি আগের গানটি শোনেননি। নতুন গানেরই ভক্ত হয়ে গেছেন। যখন বললাম, এটি ৩০ বছর আগের গান, তিনি অবাক হয়ে গেছেন।

অনেক সমালোচনাও হচ্ছে?

অনেকের কাছে আগের গানটাই ভালো। তাঁরা নতুনটি নিতে পারছেন না। আমি তাঁদের বলি, নতুনটা আপনার পছন্দ না হলে পুরনোটা তো আছেই। এটা একটা চেষ্টা। উৎসাহ দেওয়া দরকার। ভালো কিছু বেরিয়েও আসতে পারে।

 

এ রকম গানের প্রয়োজনীয়তা আছে বলছেন?

হ্যাঁ। এভাবে তো গানকে নতুন জীবন দেওয়া হচ্ছে। যাঁরা আগে শুনেছেন তাঁরাও ভিন্ন স্বাদ পাচ্ছেন, আর যাঁরা শোনেননি তাঁরা পরিচিত হচ্ছেন।



মন্তব্য