kalerkantho


ইয়ং বেঙ্গল

আমজনতার শামীম

ইউটিউবের একটি জনপ্রিয় চ্যানেল ম্যাংগো স্কোয়াড। এর লিডার হলেন শামীম হাসান সরকার। পড়েছেন পুরকৌশল কিন্তু পেশা তাঁর ইউটিউবিং। মাহবুবুর রহমান সুমন জানেন তাঁর আরো অনেক কথা

২২ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০



আমজনতার শামীম

একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরিও পেয়েছিলেন শামীম। কিন্তু মন তাঁর পড়ে ছিল ইউটিউবে। তাই হয়েছেন অভিনেতা। তারপর রেডিও জকি। ম্যাংগো স্কোয়াড জয় করেছে সিলভার প্লে বাটন। উল্লেখ্য, যেসব চ্যানেলের এক লাখ সাবস্ক্রাইবার আছে, সেগুলো সিলভার প্লে বাটন পেয়ে থাকে।  

 

সালটা ২০১৪

সপ্তম শ্রেণিতে ওঠার আগেই শামীমকে সাতটা স্কুল বদলাতে হয়। অবশেষে ২০০১ সালে ভর্তি হন ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে। বড় ভাইদের ধমক খেয়ে নাম লেখান ট্যালেন্ট শো প্রতিযোগিতায়। দেশাত্মবোধক গান গেয়ে প্রথম পুরস্কারও পান। মঞ্চনাটক বিভাগে পান দ্বিতীয় পুরস্কার। তার পর থেকে অভিনয়টা তাঁর ঘাড়ে চেপে বসল সিন্দবাদের ভূতের মতোই। ক্যাডেট কলেজ থেকে এইচএসসি শেষ করে ভর্তি হন মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে। মঞ্চনাটক সেখানেও তাঁর পিছু পিছু গেল। আন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিযোগিতায় মঞ্চনাটক দলের তিনি ছিলেন নেতা। এবার রীতিমতো অভিনেতা হওয়ার স্বপ্ন দেখতে থাকেন; কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় শেষ করার পরই চাকরিতে ঢুকে যান। এরপর ২০১৪ সালে উচ্চশিক্ষার জন্য যান মালয়েশিয়া। ইন্টারনেট তখন তাঁর বিনোদনের সেরা মাধ্যম। ইউটিউব দেখে কাটত অনেক সময়। বিদেশি অনেক ইউটিউবার তাঁর নজর কাড়ে সে সময়। ভাবলেন, বিদেশিরা পারলে আমিও পারব। ২০১৪ সালের ১৯ অক্টোবর ই-স্মার্টনেস নামের প্রথম ভিডিওচিত্র আপলোড করেন ইউটিউবে। তবে সেটি সফলতার মুখ দেখেনি। কিন্তু দমে যাননি শামীম। দেশে ফিরে তৈরি করতে থাকেন একের পর এক ভিডিওচিত্র। বেশির ভাগই আমজনতাকেন্দ্রিক। জিতেও নেন আমজনতার হূদয়। শামীম হাসান সরকার বলেন, ‘আমজনতার কথা বলি বলেই চ্যানেলের নাম রেখেছি ম্যাংগো স্কোয়াড।   সমস্যাগুলোকে মজার ছলে প্রকাশ করি। চাই জনসচেতনতা তৈরি হোক। ’

 

সাড়া ফেলেছেন শামীম

শামীম এ পর্যন্ত ২৩টি ভিডিওচিত্র আপলোড করেছেন। সবচেয়ে সাড়া ফেলেছে ‘অস্থির মিউজিশিয়ান’। এর কয়েকটি পর্ব আছে। এতে সংগীতকার বলে পরিচিত কয়েকজনকে দেখা যায় গান কপি-পেস্ট করে তৈরি করতে। এ ছাড়া আধুনিক নাম দিয়ে কুরুচিপূর্ণ গান চালানোর চেষ্টাকেও ব্যঙ্গ করা হয়েছে কোনো কোনো পর্বে। মালয়েশিয়া থাকার সময়ই শামীমের চিন্তাটা মাথায় আসে। তিনি তখন অনেক বাংলা ভিডিওসং ডাউনলোড করে দেখেন। বলছিলেন, ‘আমি নিজে গানের মানুষ। একটি ব্যান্ডদলে গিটারও বাজিয়েছি। তাই গানের নামে যা চালানো হচ্ছে, তা দেখে ব্যথিত হয়েছি। অথচ আমাদের দেশে অনেক মেধাবী সংগীতকার ও শিল্পী আছেন। তাঁরা সুযোগ পেলে অনেক ভালো গান উপহার দিতে পারেন। আমি কাউকেই ছোট করতে চাইনি; বরং আমার লক্ষ্য ভালো শিল্পীরা জায়গা পাক। ’

ম্যাংগো স্কোয়াড আলোচনায় আসে ২০১৫ সালের ২৪ নভেম্বর। অস্থির নামের একটি ভিডিও সিরিয়াল আপলোড করা হয় ওই দিন। শামীম এ সিরিয়ালে ভারতীয় সিরিয়ালকে ব্যঙ্গ করেছেন। শামীম বললেন, ‘আমার বাসায় ওই সব সিরিয়াল খুব দেখা হয়। পরিবারের লোকদের মধ্যে প্রভাবও পড়ে। আত্মীয়স্বজনের মধ্যেও এটা হতে দেখেছি। সেভাবেই ভাবনাটি আসে। সাড়াও ফেলে অল্প সময়ে। ’

বিয়ের আগের ও পরের কাহিনি নিয়ে শামীমের আরেকটি ভিডিও সাড়া জাগিয়েছে। এতে শামীমের সঙ্গে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী তাসনুভা এলভিন। রেহানুজ্জামান নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী ভিডিওটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘ভিডিওটি দেখে বাস্তব জীবনের সঙ্গে মিল পেলাম। অনুভূতি পরিবর্তনের খেলায় অনুভূতি নাড়া দিয়ে গেল। ধন্যবাদ শামীম। ’

 

এখন শামীম

২০১৫ সালে ম্যাংগো স্কোয়াডের মাত্রই এক বছর। শামীম ডাক পান টিভি নাটকে অভিনয় করতে। নাটকের পরিচালক ম্যাংগো স্কোয়াডের ভিডিও দেখে খুশি হয়ে শামীমকে আমন্ত্রণ জানান। এর পর থেকে নিয়মিতই নাটক আর টিভিসিতে কাজ করে যাচ্ছেন শামীম। সম্প্রতি আমজনতার কথা নাম দিয়ে একটি রেডিও শো শুরু করেছেন। একটি অফিস খোলার কথাও ভাবছেন। আরো ভাবছেন একটি ওয়েবসাইট খোলার কথা। নায়ক হিসেবে নয়, বরং অভিনেতা হিসেবে দর্শকমনে জায়গা করে নিতে চান শামীম।


মন্তব্য