kalerkantho

সোমবার । ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ৮ ফাল্গুন ১৪২৩। ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভুল সবই ভুল

প্লেনের ব্ল্যাক বক্স কালো

সবাই সত্যি জানে, এমন অনেক কথা পরে যাচাই করে দেখা গেছে, সেগুলো মিথ্যা। লিখছেন আসমা নুসরাত

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



প্লেনের ব্ল্যাক বক্স কালো

ব্ল্যাক বক্স কমলা রঙের হয়ে থাকে

আসলে কিন্তু ব্ল্যাক বক্স কমলা রঙের হয়ে থাকে। পেছন ফিরে দেখলে এর কালো নামের উৎস খুঁজে পাওয়া যেতে পারে। ড. ডেভিড ওয়ারেন নামের এক অস্ট্রেলীয় বিজ্ঞানী ব্ল্যাক বক্স আবিষ্কার করেন। সময়টা গত পঞ্চাশের দশকের মাঝামাঝি। কমেট নামের একটি বাণিজ্যিক উড়োজাহাজ রহস্যজনকভাবে দুর্ঘটনাকবলিত হলে ডেভিড চিন্তিত হন। তিনি ভাবেন, যদি দুর্ঘটনার আগের সময়ের কিছু কথাবার্তা শোনার সুযোগ থাকত, তবে বুঝতে সুবিধা হতো কেন বিমানটি দুর্ঘটনায় পড়ল। সে জন্য তিনি একটি ফ্লাইট ডাটা রেকর্ডার তৈরি করলেন। ১৯৫৭ সালে এটি প্রথম প্রদর্শিত হয়। তবে ১৯৬০ সালের আগে কিন্তু বিমানে ব্ল্যাক বক্স ব্যবহার করা হয়নি। অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডে একটি বিমান দুর্ঘটনায় পড়ার পর থেকে সব বাণিজ্যিক বিমানে ব্ল্যাক বক্স ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়। এরপর  ব্ল্যাক বক্সের ওপর আরো গবেষণা হয়েছে, উন্নত করা হয়েছে ব্ল্যাক বক্স। এখন প্লেনের লেজের দিকে একটি রেকর্ডার থাকে, আরেকটি থাকে ককপিটে। তবে ডেভিডের আমলে ব্ল্যাক বক্স কালোই ছিল। তিনি একে আগুনে পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করার উপায় ভেবেছেন আর ভেবেছেন শব্দ ধারণের উপায়। নির্মাতারা ভেবেছেন এটিকে জং ধরা থেকে বাঁচানোর উপায়। বক্সের রং তাই কালোর বদলে উজ্জ্বল কমলা রং দেওয়া হয়। যেন দুর্ঘটনার পর সহজে খুঁজে পাওয়া যায়। উল্লেখ্য, ব্ল্যাক বক্স নামটি চালু হওয়া ও রয়ে যাওয়ার পেছনে মিডিয়ারও ভূমিকা আছে। তারা এটি বলতে স্বচ্ছন্দ বোধ করে এবং রং বদলানোর পরও ব্ল্যাক বক্সই বলে চলেছে।


মন্তব্য