kalerkantho

মাগুরায় হামলায় অধ্যক্ষ নিহত

অভিযোগের তীর ইউপি চেয়ারম্যানের দিকে

মাগুরা প্রতিনিধি   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাগুরার মহম্মদপুরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গাছ কাটার প্রতিবাদে মামলা করায় প্রতিপক্ষের হামলায় প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ও মাদরাসা অধ্যক্ষ আবদুর রউফ (৪০) নিহত হয়েছেন। গতকাল সোমবার বিকেলে মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর পরিবার হামলার জন্য মহম্মদপুর উপজেলার বালিদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পান্নু মিয়াকে দায়ী করেছে।

নিহত আবদুর রউফ মহম্মদপুরের হাজি মোসলেম উদ্দীন টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড বিএম কলেজের পরিচালনা কমিটির সভাপতি এবং মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার কাদিরপাড়া সম্মিলনী ইসলামী আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ। তাঁর বাড়ি বালিদিয়ার ঘোষপুর গ্রামে। গত ২১ মার্চ বৃহস্পতিবার রাতে মহম্মদপুরের বড়রিয়া এলাকায় প্রতিপক্ষ তাঁকে পিটিয়ে আহত করেছিল।

নিহতের ভাই আবদুল ওয়াহাব মিলনের অভিযোগ, সম্প্রতি মোসলেম উদ্দীন টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড বিএম কলেজের গাছ জোর করে কেটে নেন চেয়ারম্যান পান্নু মিয়া। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি আবদুর রউফ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে আদালতে পান্নু মিয়ার নামে মামলা করেন। এতে পান্নু মিয়া ক্ষুব্ধ হয়ে রউফের ওপর দলবল নিয়ে হামলা চালান। পান্নু মিয়া বালিদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। মিলন বলেন, ‘অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় আমার ভাইকে প্রাণ দিতে হলো। আমরা এ বিষয়ে হত্যা মামলা করব।’

অভিযুক্ত পান্নু মিয়া বলেন, ‘আমি ঘটনার সময় এলাকায় উপজেলা নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত ছিলাম। অযথা এ ঘটনায় আমাকে জড়ানো হচ্ছে।’

মহম্মদপুর থানার ওসি রবিউল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মশিউর রহমান বলেন, আহত অবস্থায় তিনি (আবদুর রউফ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার বিকেলে হঠাৎ তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। কিছুক্ষণের মধ্যে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা যান।

মন্তব্য