kalerkantho

ড. কামাল বললেন

বৈষম্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ‘আমাদের স্বাধীনতার যে অর্জন সেটা হলো—এ দেশের সকল মানুষ সমান অধিকারের অধিকারী হবে, ধর্মকে অপব্যবহার করা যাবে না, ধর্মকে নিয়ে মানুষে মানুষে বৈষম্য সৃষ্টি করা, বিভেদ-বিভাজন সৃষ্টি করা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। জাতি হিসেবে আমরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে মনে-প্রাণে বিশ্বাস করি এবং এখানে আমরা সকল ধর্মের মানুষ সহাবস্থান করি। আসুন এটাকে বাস্তবে রূপান্তরিত করতে সেই পরিবেশ, সংস্কৃতি, মূল্যবোধ সারা দেশে ছড়িয়ে দিই।’

গতকাল সোমবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ও আহতের প্রতি শোক ও সংহতি শীর্ষক আলোচনায় এসব কথা বলেন তিনি।

 ড. কামাল বলেন, ‘আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধের লক্ষ্য ছিল মানুষের মানবাধিকার রক্ষা করা, আমাদের সকলের অধিকার রক্ষা করা, আমাদের বেঁচে থাকার অধিকারকে রক্ষা করা। বাংলাদেশের মানুষ বেঁচে থাকার অধিকারকে রক্ষার জন্য, মৌলিক অধিকারকে রক্ষার জন্য একাত্তর সালে সাড়ে সাত কোটি মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে যুদ্ধ করেছিল, দেশ স্বাধীন করেছিল। পাকিস্তান আমলে সামপ্রদায়িকতাকে লালন করা হয়েছে, ধর্মকে মানুষের মাঝে অপব্যবহার করা হয়েছে মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করার জন্য।’

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের ঘটনার পর সে দেশের প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সরকারের ভূমিকার প্রশংসা করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

সভাপতির বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা ও কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, ‘আমরা আন্তর্জাতিক সহ-অবস্থানের পক্ষে। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের ঘটনার নিন্দা জানাই।’

অনুষ্ঠানে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বাসদের সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, সাবেক সচিব মোফাজ্জ্বল করীম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য