kalerkantho


জ্যেষ্ঠ মার্কিন কর্মকর্তা আসছেন

নির্বাচনপ্রক্রিয়ার প্রতি সমর্থন জানাবেন

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



জ্যেষ্ঠ মার্কিন কর্মকর্তা আসছেন

অ্যালিস জি ওয়েলস

বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচনপ্রক্রিয়ার প্রতি সমর্থন জানাতে ঢাকায় আসছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক ব্যুরোর প্রিন্সিপাল ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি অ্যালিস জি ওয়েলস। তিনি আজ শনিবার থেকে চার দিনের সফর শুরু করছেন। গতকাল শুক্রবার রাতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর এ সফরসূচি ঘোষণা করেছে।

বাংলাদেশে আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এমন একটি নির্বাচনপ্রক্রিয়া দেশটির প্রত্যাশা, যেখানে জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে, পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক ব্যুরোর প্রিন্সিপাল ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি অ্যালিস ওয়েলস তাঁর এ সফরকালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাশা তুলে ধরবেন এবং এর জন্য নির্বাচনী প্রক্রিয়ার প্রতি সমর্থন জানাবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর জানায়, অ্যালিস ওয়েলস ঢাকা ও কক্সবাজার সফর করবেন। ঢাকায় তিনি সরকারের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ অংশীদারি জোরদার করা এবং একটি সমৃদ্ধ, নিরাপদ ও আন্তঃসংযুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় দুই দেশের সম্পৃক্ততা জোরদার করার বিষয়ে আলোচনা করবেন। তিনি আগামীকাল রবিবার কক্সবাজারে রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবির পরিদর্শন এবং জাতিসংঘ, বেসরকারি সংস্থা ও স্থানীয় সরকারের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন। সফরজুড়েই তিনি এই সংকট মোকাবেলায় বাংলাদেশের উদারতার প্রশংসা করবেন এবং আসন্ন নির্বাচনের ব্যাপারে সমর্থন জানাবেন।

এর আগে গতকাল সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর কনস্যুলারবিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি কার্ল রিচের বাংলাদেশ ও ভারত সফর সূচি ঘোষণা করে। কার্ল রিচ গতকাল থেকে আট দিনের বাংলাদেশ ও ভারত সফর শুরু করেছেন। সফরকালে এই দেশ দুটির কর্তৃপক্ষ ও যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের সঙ্গে তিনি বেশ কিছু বৈঠক করবেন।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর আরো জানায়, অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি কার্ল রিচ ভারতে শিশু অপহরণ এবং যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা সম্পর্কিত বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় অংশ নেবেন। যুক্তরাষ্ট্র কনস্যুলারবিষয়ক বিভিন্ন ইস্যুতে বাংলাদেশ ও ভারতের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি সম্পৃক্ততার ব্যাপারে অঙ্গীকারবদ্ধ।

 



মন্তব্য