kalerkantho


দুর্গাপূজা উপলক্ষে বাংলাদেশের পথে ভারতীয়দের ঢল

‘এ দেশের পূজা বৈচিত্র্যে ভরা’

ফখরে আলম, যশোর   

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



দুর্গাপূজা উপলক্ষে বাংলাদেশে আসার পথে সীমান্তে ঢল নেমেছে ভারতীয়দের। তাদের কাছে বড় আকর্ষণ, বাংলাদেশের দুর্গাপূজার বৈচিত্র্য। পূজা উপলক্ষে বাংলাদেশে আসার পর কালের কণ্ঠ’র কাছে এক ভারতীয় বলেছেন, তাঁদের দেশে বড় বড় মণ্ডপ তৈরি হলেও এ দেশে দুর্গাপূজা বৈচিত্র্যে ভরপুর, আনন্দদায়ক। এ ছাড়া বাংলাদেশে থাকা আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং বাপ-দাদার স্মৃতি রোমন্থন করার লক্ষ্যেও পূজার ছুটিতে আসছে অনেকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বেনাপোল সীমান্ত দিয়েই সবচেয়ে বেশি ভারতীয় পর্যটকেরও আগমন ঘটছে। পূজা উপলক্ষে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার এরই মধ্যে বিপুলসংখ্যক ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশে এসেছে। পশ্চিমবঙ্গে এবার দুর্গোৎসবে ১৩ দিন ছুটির কারণে এই সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতারা মনে করছেন, দুই দেশের মানুষের মিলনমেলায় দুর্গা উৎসব আরো বেশি প্রাণবন্ত হবে। তাঁরা জানান, যশোর, বাগেরহাট, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে এরই মধ্যে দুর্গোৎসবে যোগ দেওয়ার জন্য শত শত নাগরিক এসে পৌঁছেছেন। 

গত মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের বারাসাত থেকে এসেছেন ব্যবসায়ী প্রদীপ রায় ও প্রকাশ রায় দুই ভাই। প্রদীপ রায় বললেন, ‘যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকায় আমাদের আত্মীয় রয়েছে। সেখানে ঘটা করে দুর্গাপূজা হচ্ছে। আমি আমার স্ত্রী, মাকে নিয়ে দুর্গা মাকে দেখার জন্য এসেছি।’

কলকাতা থেকে চাকরিজীবী সরজিৎ পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে বাংলাদেশে দুর্গা উৎসবে যোগ দেওয়ার জন্য এসেছেন। তিনি বললেন, ‘বাগেরহাটের হাকিমপুরের শিকদারবাড়ির ৭০১টি প্রতিমার দুর্গাপূজা দেখার জন্য এসেছি। আমাদের ওখানে বড় বড় মণ্ডপ করে পূজা অনুষ্ঠিত হলেও এখানের আয়োজন নানা বৈচিত্র্যে ভরপুর।’

বনগাঁ থেকে এসেছেন পরিবারসহ সুবর্ণা দেবনাথ। তিনি বললেন, ‘ঢাকায় আমাদের আত্মীয় রয়েছে। আমরা ঢাকেশ্বরী মন্দিরের মাকে দর্শন করার জন্য এসেছি।’

যশোর জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি অসীম কুণ্ড বললেন, ‘আমাদের পূজায় প্রাণ রয়েছে। এ জন্যই আমাদের আত্মীয়-স্বজন মা দুর্গার দর্শনে আসছে।’



মন্তব্য