kalerkantho


দিনাজপুরে বোনের বাসায় বেড়াতে এসে গৃহবধূ খুন

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দিনাজপুর বোনের বাড়িতে বেড়াতে আসা এক গৃহবধূকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা  হয়েছে। রবিবার রাত ১১টার দিকে দিনাজপুর শহরের ঈদগাহ আবাসিক এলাকায় এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে।

নিহত গৃহবধূর নাম রানী মনিরা (৩৮)। তিনি দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার শিতলাই গ্রামের আজম আলীর স্ত্রী।

পুলিশ সূত্র জানায়, রানী মনিরা কয়েক দিন আগে দিনাজপুর শহরের ঈদগাহ আবাসিক এলাকায় বোনের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। গত রবিবার বোনের স্বামী রফিকুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি বোচাগঞ্জ উপজেলায় এক আত্মীয় মারা যান। এ কারণে সকালে রানী মনিরা ও ছেলে পবনকে বাসায় রেখে রফিকুল স্ত্রীকে নিয়ে বোচাগঞ্জে যান। রাতে ১১টার দিকে ছেলে পবন মোবাইলে খবর দেয় যে তার খালা রানী মনিরাকে কে কে বা করা হত্যা করে পালিয়ে গেছে। খবর পেয়ে তারা রাতেই এসে রানী মনিরার লাশ ঘরে মৃত অবস্থায় পড়ে আছে। এ ব্যাপারে নবম শ্রেণির ছাত্র পবন জানায়, রাত ৯টার দিকে সে বাড়িতে ঢুকে দুজন অপরিচিত লোককে খালা রানী মনিরা বেগমের সঙ্গে কথা বলতে দেখেন। এ সময় সে খালার পরিচিত কেউ ভেবে ঘরে গিয়ে টিভি দেখছিল। রাত আনুমানিক ১১টার দিকে সে খালার ঘর থেকে শব্দ শুনতে পায়। এ সময় সে প্রতিবেশীদের চিৎকার করে ডাকলে প্রতিবেশীরা ছুটে আসে। তারা বাথরুমের দরজার কাছে রানী মনিরাকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখতে পায়।

এ ব্যাপারে কোতোয়ালি থানার এসআই নুরেজা জানান, লাশের গলায়, হাতেসহ শরীরের অনেক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তিনি বলেন, ধারণা করা হচ্ছে তাঁকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তে ধর্ষণ হয়েছে কি না, তা জানতে আবেদন করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।



মন্তব্য