kalerkantho


বড়পুকুরিয়ার খনিতে কয়লা তোলা শুরু

দিনাজপুর ও পার্বতীপুর প্রতিনিধি   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



প্রায় তিন মাস একটানা বন্ধ থাকার পর গতকাল শনিবার থেকে দিনাজপুর বড়পুকুরিয়া কয়লাখনিতে পরীক্ষামূলকভাবে কয়লা উত্তোলন শুরু হয়েছে। ফলে দ্রুতই তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র সচল হবে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান।

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ফজলুর রহমান জানান, সোমবার দিন ধার্য থাকলেও দুই দিন আগেই পরীক্ষামূলক কয়লা উত্তোলন শুরু হয়েছে। খনির ১৩১৪ নম্বর ফেজ থেকে শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ৫২৯ মেট্রিক টন কয়লা উত্তোলন করা হয়। সব কিছু ঠিক থাকলে সোমবার পুরো মাত্রায় কয়লা উত্তোলন শুরু হবে।

সূত্র জানায়, গত ১৫ জুন খনির ১২১০ নম্বর কোল ফেজের উৎপাদনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হলে উত্তোলন বন্ধ হয়ে যায়। এদিকে কয়লার অভাবে ২২ জুলাই থেকে বড়পুকুরিয়ায় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। উত্তরাঞ্চলের আট জেলায় শুরু হয় বিদ্যুতের ভয়াবহ লো ভোল্টেজ ও লোডশেডিং। এরই মধ্যে খনির ইয়ার্ড থেকে ২৩০ কোটি টাকার প্রায় এক লাখ ৪৫ হাজার টন কয়লা উধাও হওয়ার ঘটনা ধরা পড়েছে। বিষয়টি এখন তদন্তাধীন। খনির ১৯ কর্মকর্তার নামে দুর্নীতি দমন আইনে পার্বতীপুর মডেল থানায় একটি মামলা হয়েছে।

গত ২৬ আগস্ট খনির প্রশাসনিক ভবনে পিডিবি, চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিএমসি-এক্সএমসি কনসোর্টিয়াম ও বিসিএমসিএলর মধ্যে অনুষ্ঠিত ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে বড়পুকুরিয়ায় কয়লা উত্তোলন শুরুর সিদ্ধান্ত হয়। আগামী অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান।

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের উপদেষ্টা মো. আমজাদ হোসেন বলেন, উত্তোলনকৃত মজুদ কয়লা শেষ হওয়ায় কয়লাভিত্তিক ৫২৫ মেগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে  ৪৭ দিন ধরে উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। নতুন করে কয়লা উত্তোলনে এ সংকটের সমাধান হবে দ্রুতই।

 



মন্তব্য