kalerkantho


দোহারে ২৩ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার আটক ৫

দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা) ও সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ঢাকার দোহার উপজেলার মৈনট ঘাট থেকে ২৩ কেজি ওজনের ২০০টি অবৈধ সোনার বার জব্দ করেছেন র‌্যাব-১১-এর সদস্যরা। র‌্যাবের ভাষ্য, গতকাল শুক্রবার সকালে চেকপোস্ট বসিয়ে আন্তর্জাতিক সোনা চারাচালানের একটি চক্রের পাঁচ সদস্যকে আটক করে সোনার বারগুলো উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত ব্যক্তিরা হলেন মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের আলেপ খাঁর ছেলে মো. মহসিন খাঁ (৪৭), ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার গালিমপুর গ্রামের মো. শাহাজাদার ছেলে মো. ফিরোজ (৩৪), একই উপজেলার মদনখালী গ্রামের মৃত ইয়াকুব শেখের ছেলে মো. সিদ্দিক (৪৬), জামাত আলীর ছেলে মো. মিজান (৩৪) এবং একই গ্রামের মো. আমিনুল ইসলাম (৪০)।

র‌্যাব সূত্র জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল সকাল ৭টার দিকে র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জ আদমজীনগর ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর আশিক বিল্লাহ ও মুন্সীগঞ্জ বালাশুর ক্যাম্প কমান্ডার এএসপি মুহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল দোহার উপজেলার মৈনট ঘাটে চেকপোস্ট বসানো হয়। এ সময় সিএনজি করে মৈনট ঘাটে আসা পাঁচ যাত্রীকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাঁদের দেহ ও ব্যাগ তল্লাশি করে ২০০ পিস সোনার বার এবং ২৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

পরে গতকাল বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজীতে অবস্থিত র‌্যাব-১১-এর প্রধান কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব-১১-এর সিও (অধিনায়ক) কমান্ডার রাসেল আহমেদ কবীর জানান, আটক আসামিদের অভিনব কায়দায় তৈরিকৃত কোমরের বেল্ট ও জুতার ভেতর থেকে স্বর্ণের বারগুলো উদ্ধার করা হয়। ২০০টি স্বর্ণের বারের মোট ওজন ২৩ কেজি ৩২৮ গ্রাম। স্বর্ণের গুণগত মান ২৪ ক্যারেট এবং বিশুদ্ধতার মান শতকরা ৯৯.৯৯ ভাগ, যার বর্তমান বাজারমূল্য আনুমানিক ৯ কোটি টাকা। তিনি আরো জানান, ধৃত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাবকে আরো জানান, তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে স্বর্ণ চোরাচালানের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িত। চোরাচালানের মাধ্যমে আনা স্বর্ণের বার তাঁরা দেশের সীমান্ত দিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশে পাচার করে আসছেন। এ বিষয়ে দোহার থানায় মামলা দায়ের এবং আসামিদের হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

 



মন্তব্য