kalerkantho


বসুন্ধরা খাতা-কালের কণ্ঠ স্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতা

বান্দরবান ক্যান্ট পাবলিক স্কুল চট্টগ্রাম বিভাগে সেরা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বান্দরবান ক্যান্ট পাবলিক স্কুল চট্টগ্রাম বিভাগে সেরা

বসুন্ধরা খাতা ও কালের কণ্ঠ’র যৌথ আয়োজনে জাতীয় স্কুল বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিভাগীয় অঞ্চলের প্রতিযোগীদের সঙ্গে অতিথিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

গতকাল শুক্রবার চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হলো ‘বসুন্ধরা খাতা-কালের কণ্ঠ জাতীয় স্কুল বিতর্ক’ প্রতিযোগিতা। চট্টগ্রামের ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল কমপ্লেক্স ভবন অডিটরিয়ামে এ প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিভাগের সেরা মুকুটটি ছিনিয়ে নিয়েছে বান্দরবান ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ দল। আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় দলটি অংশ নেবে। প্রতিযোগিতায় রানার্স-আপ হয়েছে নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। আর শ্রেষ্ঠ বক্তা হয় ওই স্কুলের শিক্ষার্থী নাফিজা আনজুম মৃত্তিকা।

গতকাল সকাল ১০টা থেকে শুরু হওয়া প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিভাগের আটটি স্কুলের বিতার্কিকরা অংশ নেয়। স্কুলগুলো হলো চট্টগ্রাম ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বান্দরবান ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ফেনী সেন্ট্রাল উচ্চ বিদ্যালয়, রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, কুমিল্লা জিলা স্কুল, নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও চট্টগ্রামের কাজেম আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

পুরস্কার বিতরণী ও আলোচনা অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দীন মোহাম্মদ আলমগীর, বড়তাকিয়া গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও শুভসংঘের কেন্দ্রীয় প্রধান উপদেষ্টা নিয়াজ মোর্শেদ এলিট এবং কালের কণ্ঠ চট্টগ্রাম ব্যুরো চিফ মুস্তফা নঈম।

অনুষ্ঠানে সিরাজ উদ্দীন মোহাম্মদ আলমগীর শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, বিতর্কের মাধ্যমে মেধা ও মনন দিয়ে তাত্ক্ষণিকভাবে মেধা বিকাশের সুযোগ হয়ে ওঠে। এতে পাঠ্য বইয়ের বাইরের বিষয়গুলো জানার মাধ্যমে মেধা বিকাশের পথ সুগম হয়ে ওঠে। তিনি আরো বলেন, যারা সাহস জোগায়, তারা সব সময় পেছন থেকে সাহস জোগায়। তরুণ প্রজন্মকে যারা সাহস জোগাচ্ছে তাদের অন্যতম কালের কণ্ঠ ও বসুন্ধরা গ্রুপ।

নিয়াজ মোর্শেদ এলিট বলেন, সমাজে দিন দিন যুক্তি জিনিসটা হারিয়ে যাচ্ছে। গায়ের জোরে সবাই কাজ করছে। এটা মোটেও কল্যাণ বয়ে আনে না। কারণ আজকের তরুণদের হাতেই দেশের ভবিষ্যৎ। তাই তরুণদের যুক্তি দিয়ে সব সময় কল্যাণের পথে হাঁটতে সহায়তা করতে হবে। কালের কণ্ঠ তার যাত্রালগ্ন থেকেই এ ধরনের শুভ কাজের সাক্ষী হয়ে আছে।

চট্টগ্রাম মহানগর শুভসংঘের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হায়দারের সঞ্চালনায় বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন শুভসংঘের পরিচালক যাকারিয়া জামান। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠ চট্টগ্রামের ব্যুরো চিফ মুস্তফা নঈম, চট্টগ্রাম মহানগর শুভসংঘ কমিটির সভাপতি রিয়াজ রহমান চৌধুরী। সমাপনী বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠ চট্টগ্রাম ব্যুরোর ডেপুটি ব্যুরো চিফ শিমুল নজরুল। বিচারকমণ্ডলীর দায়িত্বে ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় বিতর্ক সংগঠন চট্টগ্রাম ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটির (সিইউডিএস) সদস্যরা।

 



মন্তব্য