kalerkantho


১০ সেপ্টেম্বর থেকে বড়পুকুরিয়ায় ফের কয়লা তোলা শুরু

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া খনি থেকে ফের কয়লা তোলা শুরু হচ্ছে। ওই দিন খনির ১৩১৪ নম্বর কোল ফেজ থেকে পরীক্ষমূলকভাবে কয়লা তোলা হবে। এর আগে গত ১৫ জুন খনির উৎপাদনশীল ১২১০ নম্বর কোল ফেজের উৎপাদনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হয়ে যাওয়ায় ১৬ জুন থেকে কয়লা উত্তোলন বন্ধ হয়ে যায়। একই সময় খনির কোল ইয়ার্ড ও কয়লাভিত্তিক ৫২৫ মেগাওয়াট বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে কয়লার মজুদ শূন্যের কোটায় নেমে আসে। এতে কয়লার অভাবে গত ২২ জুলাই বড়পুকুরিয়ায় বিদ্যুৎ উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। ফলে উত্তরাঞ্চলের আট জেলায় বিদ্যুতের লোডশেডিং সমস্যা প্রকট হয়ে ওঠে। 

এদিকে খনির কয়লা মজুদের হিসাবে গরমিল ও এক লাখ ৪৪ হাজার ৬৪৪ মেট্রিক টন কয়লা ঘাটতির ঘটনা জানাজানি হলে দেশজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। এমন পরিস্থিতিতে খনির চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান, খনি কর্তৃপক্ষ ও বাংলাদেশি খনি শ্রমিকদের ঐকান্তিক চেষ্টায় নির্ধারিত সময়ের আগেই আগামী ১০ সেপ্টেম্বর খনির ১৩১৪ নম্বর ফেজ থেকে কয়লা তোলা শুরু হতে যাচ্ছে। তবে বাংলাদেশি খনি শ্রমিকরা আগামীকাল শনিবার থেকেই পরীক্ষামূলকভাবে কয়লা তোলা শুরু করতে চায়। গত বুধবার বিকেলে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি পরিদর্শনে গেলে খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. ফজলুর রহমান সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

খনির মহাব্যবস্থাপক (মাইনিং) সাইফুল ইসলাম সরকার বলেন, কয়লার অভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়া বড়পুকুরিয়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের তিনটি ইউনিট দ্রুত চালু করতে তৎপরতা চলছে। গত ২৬ আগস্ট বিকেলে খনির প্রশাসন ভবনে পিডিবি, চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিএমসি-এক্সএমসি কনসোর্টিয়াম ও বিসিএমসিএলের মধ্যে অনুষ্ঠিত ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হয়। বৈঠকে আগামী ১০ সেপ্টেম্বর বড়পুকুরিয়ায় কয়লা তোলা শুরুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সিদ্ধান্তটি এরই মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে সরকার তথা জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় এবং পেট্রোবাংলা কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

 

 



মন্তব্য