kalerkantho


বিএনপির অর্ধশত নেতাকর্মী গ্রেপ্তার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপির অর্ধশত নেতাকর্মী গ্রেপ্তার

দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বিএনপি ও জামায়াতের প্রায় অর্ধশত নেতাকর্মীকে। পুলিশের দাবি নাশকতা পরিকল্পনার জন্য বৈঠক করায় বেশির ভাগকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে আগের মামলায়। অন্যদিকে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের দাবি সন্দেহবশত হয়রানিমূলক মামলায় নেতাকর্মীদের আটক করা হয়েছে। যশোর মণিরামপুর উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নিস্তার ফারুকসহ বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের ১৮ জন নেতাকর্মীকে গতকাল মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আদালতে জামিন নিতে গেলে তাদের একযোগে আটক করা হয়। আগের রাতে নাটোরের বড়াইগ্রামে গ্রেপ্তার করা হয়েছে শহর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মজিদ সরকার ও থানা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক সরকারসহ আট নেতাকর্মীকে। এ ছাড়া সিলেটে বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির নেতা আবারক আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিবার আটক জকিগঞ্জ পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শাকুরকে গতকাল কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রাজশাহীর তানোরে আটটি বোমাসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে জামায়াতের নেতা ওবাইদুর রহমানকে। যশোরের শার্শায় রবিবার বিস্ফোরক ও নাশকতার মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে ১২ জনকে। তারা সবাই বিএনপির নেতাকর্মী। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদে জানা গেছে এসব তথ্য।

বড়াইগ্রাম : নাটোরের বড়াইগ্রামে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের আট নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মজিদ সরকার, থানা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক সরকার ও শহর ছাত্রদলের সভাপতি শাহাদত হোসেন শামীমকে। একই রাতে গ্রেপ্তার করা হয় টিটু সেখ, সজীব হোসেন, সাজদার হোসেন, আশরাফুল সেখ ও আকতার হোসেন নামে কর্মীদের।

বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলিপ কুমার দাস জানান, জামায়াত ও বিএনপির নেতাকর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে নাশকতা সৃষ্টির জন্য সভা করেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের আটক করা হয়েছে।

শহর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান বিপুল জানান, সোমবার সন্ধ্যায় মৌখাড়া বাজারস্থ বিএনপি কার্যালয়ে তারেক রহমানের কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে কেক কাটা হয়। সেখানে আলোচনাসভার আয়োজন ছিল। মূলত পুলিশের অনুমতি না নিয়ে এই অনুষ্ঠান করায় নেতাকর্মীদের আটক করা হয়েছে।

মণিরামপুর : মণিরামপুর উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ও সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নিস্তার ফারুকসহ বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের ১৮ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল যশোর আদালতে জামিন নিতে গেলে তাদের আটক করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত অন্যরা হলেন মণিরামপুর কলেজ ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইমরান নাজির, যুবদল নেতা শাহিনুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, জনি হোসেন, টিপু সুলতান, হারুন-অর-রশিদ, মুক্তাদির হোসেন, মিজানুর রহমান, রনি হোসেন, রফিকুল ইসলাম, মিকাইল হোসেন, বদরুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলাম। শুক্রবার দায়ের করা একটি নাশকতা পরিকল্পনার মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

বিশ্বনাথ (সিলেট) : সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপি নেতা আবারক আলীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার গভীর রাতে দৌলতপুর ইউনিয়নের করপাড়া গ্রাম থেকে তাঁকে আটক করে পুলিশ। বিশ্বনাথ থানার ওসি শামসুদ্দোহা বলেন, বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা একটি মামলায় আবারককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জকিগঞ্জ (সিলেট) : রবিবার রাতে গ্রেপ্তার করা জকিগঞ্জ পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শাকুরকে গতকাল আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উসকানি দেওয়ায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে শাকুরকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

তানোর (রাজশাহী) : রাজশাহীর তানোরে আটটি বোমাসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে জামায়াতের নেতা ওবাইদুর রহমানকে। তিনি  জামায়াতের তানোর উপজেলা কমিটির সদস্য ও রোকন। সোমবার রাতে বারোঘরিয়া মোড়ে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থেকে তাঁকে আটক করে পুলিশ। ওষুধের দোকানে তল্লাশি করে পাওয়া যায় চারটি পেট্রলবোমা ও চারটি ককটেল। তানোর থানার ওসি রেজাউল ইসলাম জানান, সোমবার রাতে জামায়াত নেতা ওবাইদুর রহমানের দোকানে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা গোপন বৈঠক করছিল। এ সময় পুলিশ সেখানে গেলে নেতাকর্মীরা পালিয়ে যায়। গ্রেপ্তার করা হয় ওবাইদুরকে।

বেনাপোল (যশোর) : যশোরের শার্শায় গত রবিবার বিএনপি ও জামায়াতের ৩৮ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে নাশকতার মামলা। এ মামলায় আটক করা হয়েছে ১২ জনকে। গ্রেপ্তারকৃতরা তৃণমূলের নেতাকর্মী। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছয়টি ককটেল, পাঁচটি পেট্রলবোমা, ২০টি রেললাইনের পাথর ও ১৩টি লাঠি জব্দ করেছে।



মন্তব্য