kalerkantho


শুভ জন্মাষ্টমীতে সম্প্রীতি অটুট রাখার আহ্বান

ওবায়দুল কাদেরের বিশেষ বার্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক    

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



শুভ জন্মাষ্টমীতে সম্প্রীতি অটুট রাখার আহ্বান

জন্মাষ্টমী উপলক্ষে গতকাল রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

বংশীধারী মদনমোহন তিনি, শিখিয়েছেন মনুষ্যত্বের ধর্ম। কর্মের মধ্য দিয়েই আলোর পথে হাঁটার নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। সৃষ্টি ও স্থিতিতে তিনি প্রলয়ের যুগসন্ধিক্ষণ। যুগ যুগ ধরে তাই সৎ প্রেম আর সুন্দরের মধ্য দিয়েই সনাতন ধর্মাবলম্বীরা আবাহন করেন দ্বাপর যুগের অবতার শঙ্খ-চক্র-গদা-পদ্মধারী ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে। দুষ্টের দমন ও শিষ্টের পালনের জন্য ধরাধামে এসেছিলেন শ্রীকৃষ্ণ। তাঁর বাণী অনুসরণ করে মোক্ষলাভের জন্য বিশ্বের লাখ লাখ ভক্ত তাঁকে স্মরণ করে। বিশেষ করে জন্মাষ্টমীতে তাঁর প্রতি ভক্তরা ভক্তি আর শ্রদ্ধায় হারিয়ে যায় ভক্তিলোকে।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পরমারাধ্য শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমীতে রাজধানী ঢাকাসহ দেশজুড়ে পালন করা হয়েছে বিভিন্ন কর্মসূচি। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রেখে দেশকে এগিয়ে নিতে আহ্বান জানানো হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ধর্মকে ব্যবহার করে কোনো ব্যক্তি বা গ্রুপ যাতে সামাজিক শৃঙ্খলায় বিঘ্ন ঘটাতে না পারে সে জন্য সব ধর্মের মানুষকে আরো সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। জন্মাষ্টমী উপলক্ষে গতকাল দুপুরে রাজধানীর বঙ্গভবনে হিন্দু সম্প্রদায়ের সদস্যদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে রাষ্ট্রপতি এ আহ্বান জানান। বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সনাতন ধর্মাবলম্বী বিশিষ্টজন ও বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা।

জন্মাষ্টমীতে মন্দিরে ও ঘরে ঘরে ছিল পূজা, আরাধনার আয়োজন। হয়েছে আনন্দ শোভাযাত্রা। রাজধানীসহ সারা দেশে মহাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের পবিত্র জন্মতিথি পালিত হয়েছে ভক্তদের প্রণতিতে। শরণাগতদের পরিত্রাণ আর ঔদ্ধত্যদের সংহার করে পৃথিবীকে শান্তি ও সম্প্রীতিতে ভরিয়ে তোলার জন্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণের প্রার্থনা করেছেন তাঁরা।

সকালে মঙ্গল আরতির আলোকচ্ছটা, পদাবলী কীর্তনের সুর আর আনন্দ শোভাযাত্রায় কৃষ্ণ কৃষ্ণ নাম সংকীর্তনে মেতে ওঠে ভক্তরা। রাজধানীতে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে ঢাকা মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটি ও বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের আয়োজনে দুই দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় কর্মসূচির প্রথম দিনটির শুভ সূচনা হয় গতকাল সকালে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় শ্রীশ্রী গীতাযজ্ঞের মধ্য দিয়ে। বিকেল ৩টায় ঢাকঢোল, সুসজ্জিত হাতিটানা রথ, জাতীয় পতাকা ও সংগঠনের পতাকাবাহী ঘোড়া আর বর্ণিল সাজে সজ্জিত তিন শতাধিক গাড়িবহরসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও মঠ-মন্দিরের লক্ষাধিক ভক্তের মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে ঐতিহাসিক কেন্দ্রীয় জন্মাষ্টমী শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপস্থিতি অনুষ্ঠানে ভিন্ন মাত্রা দেয়। আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

দুপুরে পলাশী মোড়ে ওবায়দুল কাদের জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন। এ সময় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আপনাদের কি ২০০১ সালের কথা মনে আছে? ২০০১ সালে বিএনপির নেতৃত্বে সাম্প্রদায়িক শক্তি ক্ষমতায় এলে বিভীষিকা আর অন্ধকার নেমে আসে, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা সারা বাংলায় নিপীড়িত হয়, নির্যাতিত হয়, ধর্ষিত হয় ফাহিমা-পূর্ণিমা। এদের কথা কি আপনাদের মনে আছে? কত হিন্দু রমণীকে পৈশাচিকভাবে ধর্ষণ করেছে ওই বর্বর শক্তি। নিরীহ মানুষের ওপর নির্যাতন চালিয়ে ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। এবার যদি সেই অপশক্তি আবার ক্ষমতায় আসতে পারে ২০০১ সালের চেয়েও ভয়াবহ রক্তাক্ত সময় আপনাদের জন্য ঘনিয়ে আসবে।’ ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, ‘সতর্ক থাকবেন। সেই অপশক্তি নির্বাচনে হেরে যাবে এই ভয়ে, নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্রে আপনাদের ওপর নির্যাতন চালাবে। দুর্বল ভেবে আপনাদের ওপর আঘাত দেবে। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যে সুসম্পর্ক বিরাজমান, সেই সুসম্পর্ক বিনষ্টের চক্রান্ত করবে। আপনাদের মনে রাখতে হবে, মাইনরিটিবান্ধব সরকার একমাত্র শেখ হাসিনা সরকার। আপনাদের বন্ধু, আপনজন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা।’

পরে শোভাযাত্রাটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যায়ের জগন্নাথ হল, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, দোয়েল চত্বর, হাইকোর্ট, বঙ্গবাজার, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ভবন রোড, গোলাপ শাহ্ মাজার, গুলিস্তান মোড়, নবাবপুর রোড ও রায় সাহেব বাজার হয়ে বাহাদুরশাহ্ পার্ক গিয়ে শেষ হয়। ঢাকেশ্বরী মন্দিরে রাতে অনুষ্ঠিত হয় শ্রীকৃষ্ণের পূজা।

 

জন্মাষ্টমী উপলক্ষে গতকাল চট্টগ্রাম নগরীতেও ছিল নানা আয়োজন।    ছবি : কালের কণ্ঠ

 



মন্তব্য