kalerkantho


ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন

২২ পার্ক ও চার খেলার মাঠ দখলমুক্ত করতে প্রকল্প

শেকৃবি প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



২২ পার্ক ও চার খেলার মাঠ দখলমুক্ত করতে প্রকল্প

ঢাকা উত্তরের জনগণের জীবনমান উন্নয়ন ও মানসিক স্বাস্থ্য বিকাশের জন্য ২২টি পার্ক ও চারটি খেলার মাঠ দখলমুক্ত করে ব্যবহার উপযোগী করার প্রকল্প তৈরি করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) কর্তৃপক্ষ। এ লক্ষ্যে গতকাল রাজধানীর মোহাম্মদপুরে সূচনা কমিউনিটি সেন্টারে এক ‘অংশগ্রহণমূলক দ্রুত মূল্যায়ন সভা’র আয়োজন করা হয়।

সভায় এই প্রকল্পের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ভিত্তি স্থপতিবৃন্দ লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক ইসতিয়াক জহির মোহাম্মদপুর এলাকার আটটি পার্ক ও খেলার মাঠের বর্তমান অবস্থা ও সেসব উন্নয়নে তাঁদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তুলে ধরেন। তাঁদের জরিপ অনুযায়ী এই এলাকার শহীদ পার্ক, লালমাটিয়া ত্রিকোণ পার্ক, লালমাটিয়া ডি ব্লক পার্ক, শিয়া মসজিদ পার্ক, ইকবাল রোড পার্ক, উদয়জল পার্ক, হুমায়ুন রোড পার্ক ও শ্যামলী পার্কের প্রতিটির একাংশ স্থানীয়দের দখলে। পার্টি অফিস ও দোকানপাট নির্মাণের মাধ্যমে দখল করা হয়েছে। এসব পার্ক ও খেলার মাঠে নেই খেলাধুলা বা হাঁটাচলার পরিবেশ। এলাকাবাসী ও জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় এসব পার্ক ও খেলার মাঠ পুনরুদ্ধার করে ব্যবহার উপযোগী করার কথা জানায় ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষ।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সরকারদলীয় সংসদ সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, পার্টি অফিসের নামে খেলার মাঠ দখল করা হয়েছে। তিনি বলেন, ক্ষমতায় এলে পার্টি অফিসের নামে খেলার মাঠ দখল করা হয়। এসব পার্টি অফিসে মাদকের আড্ডা বসে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এ সময় তিনি দখল করা জায়গাগুলো পুনরুদ্ধার করতে যা যা করা প্রয়োজন তা করা হবে বলে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষকে প্রতিশ্রুতি দেন।

সভায় আরো বক্তব্য দেন ডিএনসিসির ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজান, ডিএনসিসির ৫ নম্বর অঞ্চলের কর্মকর্তা এস এম অজিয়র রহমান, স্থপতি ইকবাল হাবিব ও ড. আকতার মাহমুদ।

সভা শেষে উপস্থিত মোহাম্মদপুরের বাসিন্দারা এসব পার্ক ও মাঠ উন্নয়নে বিভিন্ন পরামর্শ দেয়। তারা এসব মাঠ দখলমুক্ত করে শিশু-কিশোরদের খেলার উপযোগী করার পাশাপাশি নারী ও বয়স্কদের নিরাপদ গমনের স্থল হিসেবে গড়ে তোলার দাবি জানায়। সেই সঙ্গে এসব পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য জনবল নিয়োগের পরামর্শও দেয়। যেসব জায়গা শুধু পার্ক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে সেসবের একাংশ খেলার মাঠ হিসেবে প্রস্তুত করার দাবিও জানায় তারা।

অনুষ্ঠান শেষে ভিত্তি স্থপতিবৃন্দ লিমিটেডের পরিচালক স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, ‘এলাকাবাসীর মতামত যাচাই করে সীমিত সম্পদের কথা মাথায় রেখে আমরা আমাদের পরিকল্পনা চূড়ান্ত করে আবার তাদের সামনে উপস্থাপন করব। তারপর তাদের মতামতের ভিত্তিতে সেসব বাস্তবায়ন করা হবে।’

 



মন্তব্য