kalerkantho


গোলাম সারওয়ার ও মোয়াজ্জেম হোসেন স্মরণসভায় বক্তারা

রাজনীতির জন্য সাংবাদিকতার নীতি বিসর্জন দেননি তাঁরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



রাজনীতির জন্য সাংবাদিকতার নীতি বিসর্জন দেননি তাঁরা

গোলাম সারওয়ার ও এ এইচ এম মোয়াজ্জেম হোসেন স্মরণে জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত শোকসভায় অতিথিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার ও ফিন্যানশিয়াল এক্সপ্রেস সম্পাদক এ এইচ এম মোয়াজ্জেম হোসেন নিজেদের রাজনৈতিক বিশ্বাসকে পত্রিকায় স্থান দেননি। রাজনীতির জায়গায় রাজনীতিকে রেখেছেন, সাংবাদিকতাকে দেখেছেন পেশাদারির জায়গা থেকে। তাঁরা রাজনীতির জন্য সাংবাদিকতার নীতি বিসর্জন দেননি। নিজেদের গড়ে তুলতে পেরেছেন প্রতিষ্ঠান হিসেবে। এ জন্যই তাঁরা প্রাতঃস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

প্রয়াত গোলাম সারওয়ার ও এ এইচ এম মোয়াজ্জেম হোসেন স্মরণে গতকাল শুক্রবার আয়োজিত শোকসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ও ডেইলি অবজারভার সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী, নিউজ টুডে সম্পাদক রিয়াজউদ্দিন আহমদ, সম্পাদক আবেদ খান, সমকালের প্রকাশক এ কে আজাদ, দৈনিক যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম, দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুনীরুজ্জামান, একুশে টেলিভিশনের প্রধান নির্বাহী মনজুরুল আহসান বুলবুল ও দৈনিক সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি। জাতীয় প্রেস ক্লাব সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন। সঞ্চালনা করেন ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত।

ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, ‘গোলাম সারওয়ার ছিলেন আমাদের অভিভাবক। কিন্তু আমরা সারওয়ার ভাইয়ের প্রতি জীবিত অবস্থায় যথাযথ সম্মান দেখাতে পারিনি।’

রিয়াজ উদ্দিন আহমদ বলেন, সারওয়ার ভাই প্রমাণ করেছেন বার্তা কক্ষই সংবাদপত্রের প্রাণ। আর মোয়াজ্জেম হোসেন প্রমাণ করেছেন বাংলাদেশে ইংরেজি ভাষায় অর্থনৈতিক পত্রিকার সফলতা সম্ভব।

আবেদ খান বলেন, গোলাম সারওয়ার সংবাদ, ইত্তেফাকে বার্তা সম্পাদক হিসেবে যেমন সফলতা দেখিয়েছেন একইভাবে সম্পাদক হিসেবে যুগান্তর ও সমকালকে সংবাদপত্র জগতে প্রতিষ্ঠিত করে নিজেকে সফলতার শীর্ষে নিয়ে গেছেন।

এ কে আজাদ বলেন, গোলাম সারওয়ার সমকালের সম্পাদকীয় বৈঠকে থাকতেন সম্পাদক। কিন্তু সন্ধ্যায় বার্তা কক্ষে নিজে তত্ত্বাবধান করতেন সব কিছু। অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগের দিন পর্যন্ত অনুরোধ করেও এই কাজ থেকে তাঁকে বিরত রাখা যায়নি।

ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, সারওয়ার ভাই ছিলেন বাংলাদেশের সাংবাদিকতায় ‘সুবর্ণরেখায় বাতিঘর’। মোয়াজ্জেম ভাই ছিলেন উন্নয়ন সাংবাদিকতার আলোকবর্তিকা।



মন্তব্য