kalerkantho


দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ

ঈদ যাত্রা সহজ করতে নিষেধাজ্ঞা ট্রাক পারাপারে

রাজবাড়ী ও গোয়ালন্দ প্রতিনিধি   

১০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথসহ সড়ক পথে ঈদ যাত্রা সহজ করতে প্রস্তুতি নিয়েছে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন। ওই নৌপথে ঈদের আগে ও পরের তিন দিন কোরবানির পশু এবং পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক ছাড়া সব ধরনের ট্রাক পারাপার বন্ধ থাকবে। যানবাহন পারাপারে সুবিধার জন্য ২১টি ফেরি ও যাত্রী পারাপারে ৩৩টি লঞ্চ সার্বক্ষণিক চলাচল করবে। ফেরিতে ওঠা-নামার সময় অ্যাপ্রোচ সড়কে আকস্মিক কোনো যানবাহন বিকল হলে সঙ্গে সঙ্গে তা রেকার দিয়ে সরিয়ে নেওয়া হবে। ঈদের আগে ও পরের পাঁচ দিন যাত্রী বা পরিবহনের জন্য অপেক্ষা না করে লঞ্চ ও ফেরিগুলোকে দ্রুত দৌলতদিয়া ঘাটে চলে যেতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সভায় আরো যেসব সিদ্ধান্ত হয় তা হলো—যাত্রীরা যাতে অহেতুক হয়রানির শিকার না হয় এবং যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করা হয় এ জন্য দৌলতদিয়া-রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া রুটে চলাচলকারী সব বাসে স্টিকার ও ভাড়ার তালিকা প্রদর্শন করতে হবে। দৌলতদিয়া ঘাট পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য ভিজিল্যান্স দল গঠন করা হবে। এ জন্য প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। খালি ট্রাক এবং বাসের ছাদে কোনোভাবেই যাত্রী ওঠানো যাবে না। দালালচক্র যাতে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় কৃত্রিম যানজট সৃষ্টি করতে না পারে সেদিকে নজর রাখা হবে। যাত্রীদের নির্বিঘ্ন ও নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিত করতে চাঁদাবাজি, ছিনতাইকারী, দালাল, পকেটমার ও অজ্ঞান পার্টির দৌরাত্ম্য রোধে পুলিশ মনিটরিং বাড়ানো হবে। মহাসড়কে অবৈধ নসিমন, করিমন, ভটভটি চলাচল সম্পূর্ণরূপে বন্ধ থাকবে। এ ছাড়া রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এবং গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার যৌথভাবে সার্বিক ঘাট ব্যবস্থাপনা তদারকি করবেন। পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি দল দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় সার্বক্ষণিক অবস্থান করবেন। সভায় বক্তব্য দেন রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ছাদিকুর রহমান, রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশেক হাসান, রাজবাড়ীর পৌর মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী প্রমুখ।

 



মন্তব্য