kalerkantho


নেত্রকোনায় বাবা ছেলে খুনের দায়ে ৫ জনের যাবজ্জীবন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি   

১৩ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



নেত্রকোনার আটপাড়ায় বাবা-ছেলেকে হত্যার দায়ে পাঁচজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাঁদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাভোগের আদেশ দেওয়া হয়েছে। জরিমানার এই টাকা নিহতের পরিবারকে দেওয়ার নির্দেশ হয়। এ ছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় সাতজনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ কে এম রাশেদুজ্জামান রাজা আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো রোকন উদ্দিন (৪০), জসিম উদ্দিন (৫০), সাবাস খাঁ (৫২), সুলতু মিয়া (৫৫) ও হারেছ মিয়া (৩৫)। খালাসপ্রাপ্তরা হলেন রমিজ খাঁ (৩৫), ছদ্দু মিয়া (৪৫), জুয়েল মিয়া (৩২), কমল খাঁ (৪৩), আলা উদ্দিন (৪৬), হামিদ খাঁ (৬০), কাজল খাঁ (২৭) ও নুরুল আমিন খাঁ।

রাষ্ট্রপক্ষের সরকারি কৌঁসুলি মুহাম্মদ সাইফুল আলম প্রদীপ জানান, একটি বিরোধপূর্ণ জমিকে কেন্দ্র করে ২০১১ সালের ২৭ মার্চ সকাল ৬টার দিকে তাজুল ইসলাম ও তাঁর ছেলেকে আসামিরা পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ওই দিন সন্ধ্যায় তাঁদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে নিহত তাজুল ইসলামের ছোট ছেলে সোহাগ মিয়া বাদী হয়ে ১৫ জনকে আসামি করে আটপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর আদালতে ১৩ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র জমা দেয়। ওই আসামিদের মধ্যে হামিদ খাঁ মারা যান। ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে আদালত এই রায় প্রদান করেন।

রায়ের পর মামলার বাদী সোহাগ মিয়া ওই রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘প্রকাশ্য দিবালোকে জনসমক্ষে খুনিরা আমার বাবা ও ভাইকে হত্যা করেছে। তাদের ফাঁসি না হওয়ায় আমরা উচ্চ আদালতে যাব।’



মন্তব্য