kalerkantho


ব্লগার শাহজাহান হত্যা

জঙ্গি ধারণা নিয়েই তদন্ত শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



মুন্সীগঞ্জে সিরাজদিখানের পূর্ব কাকালদী গ্রামে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত মুক্তমনা লেখক,  ব্লগার, প্রকাশক ও সাবেক সিপিবি নেতা শাহজাহান বাচ্চুর খুনিদের এখনো শনাক্ত করতে পারেনি তদন্তকারীরা। স্থানীয় থানায় দায়ের করা মামলার তদন্ত করছে পুলিশ। আর ছায়া তদন্ত করছে ঢাকার পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। তবে ধারণা করা হচ্ছে, বাচ্চুকে ধারাবাহিক হুমকি দেওয়া আনসার আল ইসলাম (সাবেক এবিটি) মতাদর্শী জঙ্গিরাই হত্যা করেছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা বেশ কিছু আলামতও জব্দ করে পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

সিটিটিসির একজন কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘হত্যার সময় খুনিদের কাছে চাপাতি ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার পরও তারা নিভৃত পল্লীর মধ্যে কেন গুলি করে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা বোঝার চেষ্টা করা হচ্ছে। আনসার আল ইসলামের জঙ্গিরা গলা ও ঘাড়ে আঘাত করে হত্যাকাণ্ড ঘটায়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা আলামত এবং হুমকির কারণে আনসার আল ইসলামকে সন্দেহ করেই তদন্তকাজ এগিয়ে চলছে।’ তিনি আরো জানান, মুন্সীগঞ্জের পুলিশও তদন্ত করছে। পলাতক জঙ্গিদের ব্যাপারেও তদন্ত করা হচ্ছে। শীর্ষ জঙ্গি মেজর (চাকরিচ্যুত) জিয়া ও তাঁর সহযোগীদের যোগাযোগ ও অবস্থানের বিষয়ে তথ্য যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

এদিকে র‌্যাব সূত্র জানায়, র‌্যাব-১১ গত কয়েক মাসে আনসার আল ইসলামের দুই ডজন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে। নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জে এ জঙ্গি সংগঠনটির বেশ কিছু সদস্য আছে। এদের ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, স্থানীয় পর্যায়ে সহায়তা নিয়ে রেকি করেই বাচ্চুকে হত্যা করা হয়েছে। 

বাচ্চু হত্যা মামলার তদন্ত করছেন সিরাজদিখান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এখনো তদন্তের অগ্রগতি নেই। বিভিন্ন আলামত নিয়ে তদন্ত শুরু করেছি।’

 

 



মন্তব্য