kalerkantho


চলন্ত প্রাইভেট কারে ধর্ষণের অভিযোগে ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



রাজধানীতে চলন্ত প্রাইভেট কারে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাহমুদুল হক রনি নামে এক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় শেরেবাংলানগর থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ গাড়িটি জব্দ করেছে।

শেরেবাংলানগর থানার ওসি জিজি বিশ্বাস বলেন, অভিযোগকারী তরুণী প্রাইভেট কারের ভেতরে ধর্ষণের জন্য মাহমুদুল হক রনিকে দায়ী করেছেন। তবে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রনি ঘটনায় জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছেন। ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য তরুণীকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পাঠানো হবে। তদন্তের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

এদিকে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, রনি ধানমণ্ডি ১৫ নম্বর রোডের একটি বাড়িতে থাকেন। গাজীপুর কাপাসিয়ার বাড়িতে যাওয়ার জন্য রাতে বের হন। মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল পান করায় গাড়ির মধ্যে বেসামাল ছিলেন তিনি। গাড়িচালক সংসদ ভবনসংলগ্ন খেজুরবাগান এলাকা থেকে দুজন তরুণীকে ‘যৌনকমী’ পরিচয়ে গাড়িতে ওঠায়। এরপর কলেজগেট এলাকায় একজন তরুণীকে নামিয়ে দেওয়ার সময় জনতা আপত্তিকর অবস্থায় রনিকে ধরে পিটুনি দেয়। চালকসহ রনিকে বিবস্ত্র করে ভিডিও করেন অনেকে। ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওসহ ব্যাপক প্রচার পায়। এরপর অভিযোগকারী তরুণী থানায় পৌঁছে মামলা করেন।

শনিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রাফি আহমেদ নামের একজন জানান, অফিস শেষে বাসায় ফেরার সময় তিনি একটি প্রাইভেট কারের পেছনের সিটে ধস্তাধস্তির দৃশ্য দেখতে পান। গাড়িটিকে অনুসরণ করেন তিনি। যানজটে প্রাইভেট কারটি কলেজ গেটে আটকে গেলে জনতা গাড়িটি আটক করে।

সূত্র জানায়, মাহমুদুল হক রনি হাজারীবাগ এলাকার যুবলীগের রাজনীতিতে জড়িত। বিভিন্ন সময় তাঁকে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে দেখা গেছে।

 

 



মন্তব্য