kalerkantho


ঈদ যাত্রার সুবিধার্থে উদ্বোধনের আগেই চালু ফোর লেন সড়ক

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুর কালিয়াকৈরের চন্দ্রা ত্রিমোড় থেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পর্যন্ত ফোর লেন সড়ক আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে খুলে দেওয়া হবে। ঈদ যাত্রার সুবিধার্থে উদ্বোধনের আগেই এ রাস্তা চালুর ঘোষণা দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। একই সঙ্গে এলাকাটির ২৬টি ব্রিজের মধ্যে ২৩টিই খুলে দেওয়া হবে। ঈদের আগে ও পরে সেগুলোর ওপর দিয়ে গাড়ি চলাচল করবে। এরপর তা উদ্বোধন হবে।

ঈদ যাত্রার ভোগান্তি লাঘব এবং যানজট পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে গতকাল রবিবার দুপুরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের চন্দ্রা ত্রিমোড় সড়ক পরিদর্শন করেন। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১২ জুন চন্দ্রা ত্রিমোড় থেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পর্যন্ত ফোর লেন সড়ক পুরোপুরি খুলে দেওয়া হবে। ২৬টি ব্রিজের মধ্যে ২৩টিই খুলে দেওয়া হবে। সেগুলোর ওপর দিয়ে গাড়ি চলবে। ঈদফেরত যাত্রীদের এ সুবিধা দেওয়া হবে। এখন আমরা এটা উদ্বোধন করতে পারছি না। ঈদের পর প্রধানমন্ত্রী এটার উদ্বোধন করবেন।’

মন্ত্রী বলেন, ঈদে গত কয়েকবারের চেয়ে এবার যাত্রীরা স্বস্তিতে চলাচল করবে। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে শিল্পপ্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার কর্মী চলাচল করে থাকে। সড়কের কারণে এ বছর যানজটের সৃষ্টি হবে না। তবে অপরিকল্পিতভাবে বা নিয়মবহির্ভূতভাবে যদি যানবাহন চলাচল করে তাহলে যানজট সৃষ্টি হলে কিছু করার নেই। খুব বৃষ্টি হলে রাস্তায় গতি কম হতে পারে তবে গাড়ি বন্ধ থাকবে না। মূলকথা সড়কের জন্য যানজট হবে না।

মন্ত্রী এ সড়কে যানজটের কারণ হতে পারে এমন নির্মাণকাজ আপাতত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। যেসব স্থানে অবৈধ পার্কিং রয়েছে তা উচ্ছেদের নির্দেশ দেন। বিভিন্ন স্থানে জমে থাকা পানি দ্রুত নিষ্কাশনের জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে। সেখানে মানবিক আচরণ বা অমানবিক আচরণের বিষয় নেই। একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসায় কোনো গাফিলতি আমরা সাপোর্ট করি না, করতে পারি না।’

মন্ত্রীর সড়ক পরিদর্শনের সময় হাইওয়ে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি আতিকুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঢাকা অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ, গাজীপুর অঞ্চলের হাইওয়ে পুলিশ সুপার শফিকুল ইসলাম, গাজীপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ডি কে এন নাহিন রেজা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 



মন্তব্য