kalerkantho


শাবিতে তিন দিনের জাতীয় নারী বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু

সিলেট অফিস   

৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



শাবিতে তিন দিনের জাতীয় নারী বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু

গতকাল সন্ধ্যায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে জাতীয় নারী বিতর্ক প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘তুচ্ছ করো কৃপা-করুণার দান, স্বমহিমায় জাগ্রত হউক নারীপ্রাণ’—এই স্লোগানে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে জাতীয় নারী বিতর্ক প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতা চলবে তিন দিন। আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রথমবারের মতো ‘মোনালিসা প্রেজেন্টস প্রথম এসইউডিএস জাতীয় নারী বিতর্ক প্রতিযোগিতা’ হচ্ছে।

সংসদীয় রীতিতে অনুষ্ঠিত এ বিতর্কে ২৪টি দল অংশ নিচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্ক সংগঠন ‘শাহজালাল ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি’র (এসইউডিএস) আয়োজনে প্রতিযোগিতায় মিডিয়া পার্টনার হিসেবে রয়েছে কালের কণ্ঠ।

গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ইলিয়াস উদ্দিন বিশ্বাস, অধ্যাপক ড. হিমাদ্রী শেখর রায়, প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদ, পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জায়েদা শারমিন, সহকারী প্রক্টর সামিউল ইসলাম, অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আসলাম হোসাইন প্রমুখ। এ সময় উপাচার্যসহ অন্যান্য অতিথি এসইউডিএসের নিয়মিত প্রকাশনা ‘অরিত্র’র মোড়ক উন্মোচন করেন।

পরে নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনার হয়। এতে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অন্যতম বাংলাদেশি হিসেবে ৯৩টি দেশ ভ্রমণকারী নারী নাজমুন নাহার, একুশে পদকে ভূষিত লোকসংগীত শিল্পী সুষমা দাস ও কাউন্সেলিং সাইকোলজিস্ট ফজিলাতুন্নেছা।

এর আগে বিকেল ৫টায় ড. জাফর ইকবালের ওপর নৃশংস হামলার প্রতিবাদ ও হামলায় জড়িতদের খুঁজে বের করার দাবিতে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করে এসইউডিএস। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল হয়।

বিতর্ক প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় দিনে আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় থাকছে রিপোর্টিং, সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ট্যাব পদ্ধতির চার রাউন্ডের বিতর্ক ও কোয়ার্টার ফাইনাল। এ ছাড়া আগামীকাল শনিবার শেষ দিনে থাকছে বিতর্কের সেমিফাইনাল, ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান।


মন্তব্য