kalerkantho


স্ত্রীর পরকীয়ার সালিস, স্বামীর আত্মহত্যা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, রংপুর   

৮ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার সোনারপাড়া গ্রামে স্ত্রীর পরকীয়া নিয়ে সালিস বৈঠকে নির্যাতন ও অপমান সইতে না পেরে স্বামী আত্মহত্যা করেছেন। তাঁর নাম সাকিরুল ইসলাম (৩০)। গত মঙ্গলবার রাতে নিজ বাড়িতে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেন তিনি। এ ঘটনায় সাতজনকে আসামি করে বদরগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। তবে সালিসে উপস্থিত গ্রাম্য মাতবরদের আসামি করা হয়নি। অভিযোগ রয়েছে, গত মঙ্গলবার সকালে ওই গ্রামে স্ত্রীর পরকীয়া নিয়ে সালিস বৈঠকে উল্টো স্বামী সাকিরুল ইসলামকে মারধর করে নির্যাতন করা হয়।

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের নাগেরহাট সোনারপাড়া গ্রামের সাকিরুল ইসলামের স্ত্রীর সঙ্গে প্রতিবেশী দুই সন্তানের জনক খায়রুল ইসলামের অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ নিয়ে গত মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে সাকিরুল ইসলামের বাড়িতে সালিস বসে। সালিসের নেতৃত্ব দেন ওই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোকতারুল মণ্ডল ও স্থানীয় মাতবর জাহাঙ্গীর আলম সোনা। সালিসে খায়রুলকে মারধর করা হয়। এ জন্য সাকিরুলকে উল্টো দায়ী করে হামলা চালিয়ে তাঁকে মারধর করে খায়রুলের পরিবারের লোকজন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে ক্ষোভে, অপমানে সাকিরুল আত্মহত্যা করেন। ওই দিন সন্ধ্যায় বদরগঞ্জ থানায় খায়রুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে সাতজনের নামে মামলা দায়ের করেন নিহতের চাচা দেলোয়ার হোসেন। তবে ওই মামলায় মাতবর জাহাঙ্গীরকে আসামি করা হলেও ইউপি সদস্য মোকতারুল মণ্ডলকে আসামি করা হয়নি।

সাকিরুলের স্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, ‘কিছুদিন আগে জোর করে খায়রুল বাড়িতে এসে আমার শ্লীলতাহানি ঘটায়।’ বদরগঞ্জ থানার ওসি আখতারুজ্জামান প্রধান বলেন, ওই ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান চলছে।



মন্তব্য