kalerkantho


গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ

বঙ্গবন্ধু, তাজউদ্দীন, সেকান্দার আলীর স্মৃতিস্মারক হস্তান্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা   

৬ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



বঙ্গবন্ধু, তাজউদ্দীন, সেকান্দার আলীর স্মৃতিস্মারক হস্তান্তর

একাত্তরের উত্তাল-অস্থির সময়ে তাজউদ্দীন আহমদ স্ত্রী জোহরা তাজউদ্দীনকে করণীয় সম্পর্কে নির্দেশনা দিয়েছিলেন। মাত্র দুই লাইনে সে সময়ের বক মার্কা সিগারেটের (KingStork) মোড়কে তিনি লিখেছিলেন, ‘জোহুরা, পারলে সাড়ে সাত কোটি বাঙালির সাথে মিশে যেয়ো। ঐ মতো ব্যবস্থা (দুই)’।

মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হন সেকান্দার আলী সেরনিয়াবাতের তিন সন্তান। স্বাধীনতার পর প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে সেকান্দার আলীকে তিন হাজার টাকার একটি চেক দেন বঙ্গবন্ধু। শহীদ তিন সন্তানের শেষ স্মৃতি হিসেবে সে চেক না ভাঙিয়ে দীর্ঘদিন সেটি আগলে রাখেন তিনি।

ঐতিহাসিক ছয় দফা নিয়ে যখন তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান উত্তাল, তখন শেখ মুজিবকে হত্যার হুমকি দিয়ে পাঠানো হয় উড়ো চিঠি।

তাজউদ্দীন আহমদের সেই চিঠি, সেকান্দার আলীর সেই চেক এবং বঙ্গবন্ধুকে হুমকি দিয়ে লেখা উড়ো চিঠিসহ অনেক ঐতিহাসিক দলিলই গতকাল সোমবার হস্তান্তর করা হয়েছে খুলনায় স্থাপিত ‘৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর’ কর্তৃপক্ষের হাতে। এগুলো জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এসব ঐতিহাসিক দলিল হস্তান্তর উপলক্ষে গতকাল বিকেলে জাদুঘর প্রাঙ্গণে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তাতে সভাপতিত্ব করেন জাদুঘর ট্রাস্টের সভাপতি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপক ড. মুনতাসীর মামুন।

 



মন্তব্য